×

বিনামূল্যে আর পাবেন না রেশন, তবে কত টাকা দিতে হবে চাল ও গমের জন্য?

করোনাকালীন পরিস্থিতি সামলে উঠতে দেশজুড়ে শুরু হয়েছিল বিনা পয়সায় রেশন। দীর্ঘকাল যাবত কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে রেশন কার্ডধারীদের দেওয়া হচ্ছিল বিনামূল্যে রেশন। প্রতিটি রাজ্যের মানুষই এই সুবিধা ভোগ করছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি রেশন ব্যবস্থায় নানা রকম পরিবর্তন আনছে সরকার। এরই মাঝে রাষ্ট্রীয় খাদ্য সুরক্ষা যোজনার আওতায় আনা হয়েছে এক নতুন নিয়ম, যার ফলে বন্ধ হতে চলেছে বিনা পয়সায় রেশন। নির্দিষ্ট দামেই এবার থেকে কিনতে হবে চাল,গম।

সম্প্রতি রাষ্ট্রীয় খাদ্য সুরক্ষা যোজনা আওতায় উত্তরপ্রদেশের রেশন ব্যবস্থায় এই নতুন নিয়ম আনা হয়েছে। যার ফলে এবার উত্তরপ্রদেশের রেশন কার্ডধারীদের রেশনের জন্য দিতে হবে নির্দিষ্ট মূল্য। ইতিমধ্যেই সেই নির্দিষ্ট মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক কত টাকায় মিলবে চাল, গম।

তথ্য অনুসারে প্রতি কেজি চালের দাম রাখা হয়েছে 3 টাকা এবং প্রতি কেজি গমের দাম রাখা হয়েছে 2 টাকা। তবে যেসব রেশন কার্ডধারী “প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনা”র আওতায় রয়েছেন, তারা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন পাবেন। এছাড়াও 31শে আগস্ট পর্যন্ত “রাষ্ট্রীয় খাদ্য সুরক্ষা যোজনা” আওতায় জুলাইয়ে রেশন বন্টন করা হবে। সেক্ষেত্রে অন্তর্দয় অন্তর্ভুক্ত কার্ডধারীরা মোট 35 কেজি রেশন পাবেন, যার মধ্যে 14 কেজি গম এবং 21 কেজি চাল পাবেন তারা।

তবে মুদ্রাস্ফীতি এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্য বৃদ্ধির কারণে সরকার আগামী 3-6 মাস পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কর্মসূচি চালিয়ে যেতে পারে। সুতরাং 30শে সেপ্টেম্বরের পরেও দেশের 80 কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেবে সরকার।

তবে সম্প্রতি অযোগ্য রেশন কার্ড ধারীদের তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার চেষ্টা করছে সরকার। যোগ্য ব্যক্তিদের ঠিকমত সুবিধা দিতেই এই পথ বেছেছে সরকার। এক্ষেত্রে যাদের 100 স্কোয়ার মিটারের বেশি জায়গায় বাড়ি, ফ্ল্যাট বা প্লট রয়েছে এবং যাদের চারচাকা গাড়ি বা ট্রাক্টর রয়েছে এবং বার্ষিক ইনকাম 2 লাখ টাকা(গ্রামে) অথবা 3 লাখ টাকার(শহরে) বেশি অথবা আর্ম লাইসেন্স রয়েছে তারা রেশন কার্ডের জন্য অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন।