×

রেলের সমস্ত টিকিট বুকিং কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে? কি জানালেন আধিকারিকরা

সম্প্রতি আমরা আস্তে আস্তে ডিজিটাল দুনিয়ায় প্রবেশ করছি। সর্বত্রই এখন লেগে আছে ডিজিটালের ছোঁয়া। এই ছোঁয়া এবার লাগতে চলেছে এবার রেলদপ্তরেও। যদিও 2005 সাল থেকেই ই-টিকিটিং সুবিধা ভোগ করেন যাত্রীরা। তবে এবার রেল দপ্তরের পক্ষ থেকে আনা হচ্ছে আরও কিছু নতুন নিয়ম, যাতে বদলাতে পারে অফলাইনে টিকিট কাটার পদ্ধতি। ডিজিট্যাল মাধ্যমের ওপর জোর দিয়ে বন্ধ হতে পারে অফলাইন টিকিট কাটার পদ্ধতি।

পূর্ব রেলের এক কর্মী জানিয়েছেন, “ধীরে ধীরে সমস্ত অফলাইন টিকিট কাউন্টার বন্ধ করা হবে রেল দপ্তরে পক্ষ থেকে। তবে এখনই কিছু হচ্ছে না”। কিছুদিন আগে জি বিজনেস রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গিয়েছিল, রেল দপ্তরের পক্ষ থেকে বন্ধ করে দেওয়া হবে 300 টি টিকিট কাউন্টার। অর্থাৎ আস্তে আস্তে ডিজিটালাইজেশনের দিকে ব্রতী হচ্ছে রেল দপ্তর।

ভুয়ো আইডি প্রুফ দিয়ে সংরক্ষিত টিকিট কাটা রুখতে এই পুরনো ব্যবস্থায় বদল আনতে চাইছে রেল দপ্তর। আরো জানা গেছে, রেল দপ্তর এই কাজের জন্য দায়িত্ব দিয়েছেন “গ্রান্ট থর্রটন” নামক একটি বেসরকারি সংস্থাকে। এই সংস্থাটি আইআরসিটিসির বর্তমান সিস্টেম খতিয়ে দেখে সমীক্ষার মাধ্যমে রেল ব্যবস্থা পরিবর্তনের পরামর্শ দেবে। তাদের পরামর্শ হাতে পাওয়ার পর পিআরএস সংস্কারের কাজ শুরু কর রেল।

বর্তমানে সংরক্ষিত টিকিট কাটতে গেলে মহা ঝঁকির মধ্যে পড়তে হয় যাত্রীদের। ষ রেল দীর্ঘ ত্রিশ বছর আগেকার নিয়মে টিকিট সংরক্ষিত করে থাকে। তাই এই নিয়মে পরিবর্তন আসলে সমস্যা মুক্ত হবেন যাত্রীরা। সমীক্ষার মাধ্যমে জানানো হয়েছে বর্তমানে 80% টিকিট কাটা হয় আইআরসিটিসি মাধ্যমে। তাই আস্তে আস্তে অফলাইন টিকিট কাউন্টার বন্ধ হলে আইআরসিটিসি ব্যবসা আরো বৃদ্ধি পাবে এমনটাই মনে করছে ভারতীয় রেল।