×

Madhumita Sarcar: পরনে নববধূর সাজ, চুপিসারে বিয়ে করে ফেললেন ‘পাখি’ মধুমিতা!

স্টার জলসার “বোঝেনা সে বোঝেনা” ধারাবাহিকের পাখি চরিত্রে নজর কেড়েছিলেন অভিনেত্রী। তারপর থেকে তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। বর্তমানে চলচ্চিত্র থেকে ছোটপর্দা,ওটিটি মাধ্যম সর্বত্রই দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন অভিনেত্রী মধুমিতা সরকার। পূর্বে প্রেমিক সৌরভ দাস এর সাথে ঘর বাধলেও সেই সম্পর্ক স্থায়ী হয়নি তবে সম্প্রতি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হওয়ার ভিডিওর মাধ্যমে প্রকাশ্যে এল মধুমিতার দ্বিতীয় বিয়ের খবর!

হ্যাঁ ঠিকই শুনছেন! সম্প্রতি অভিনেত্রী তার ইনস্টাগ্রাম পেজ থেকে পোস্ট করলেন বাঙ্গালী নববধূর সাজে সুসজ্জিত স্বীয় রিল ভিডিও। ভাইরাল এই ভিডিওতে অভিনেত্রীর পরনে ছিল লাল টুকটুকে বেনারসি শাড়ি ও লাল প্রিন্টেড ব্লাউজ। সাথে মাথায় সোনালী চুমকি বসানো লাল ভেল। এদিন অলংকার হিসেবে সোনালী নেকপিস, দুল ও মাংটিকা পড়েছিলেন অভিনেত্রী। নাকে ছিল মুক্তার নথ। সাথে হাতের শাঁখা বাধানো,সোনালী বালা ও চুরির সাজে একেবারে চন্দনের টিকা ও লাল সিঁদুরে টিপে সুসজ্জিত বাঙালি বধূর বেশে এদিন অবতীর্ণ হয়েছিলেন মধুমিতা।

তবে কি অভিনেত্রী ফের বাধা পড়লেন সাত পাকে? আজ্ঞে না! এটি অভিনেত্রীর একটি আপকামিং শুটের ব্যাক ইনসাইড মাত্র। তবে এদিন রিল ভিডিওর সাজে মধুমিতার এই অপরূপ বঙ্গবধূর বেশ মনে ধরে নেটিজেনদের। অনেকেই “বোঝেনা সে বোঝেনা”র পাখির স্মৃতিচারণ করতে থাকেন। তবে তার জীবনসঙ্গী হিসেবে ‘অরণ্য” অর্থ যশ দাশগুপ্তকে মনে করতে চাননি কেউই!

অভিনেতা বিক্রম চ্যাটার্জির বিপরীতে মধুমিতাকে “কুলের আচার” ফিল্মে অভিনয় করতে দেখা যায়। যেখানে দীর্ঘকালীন সামাজিক ধারায় চলে আসা বিবাহোত্তর মেয়েদের পদবী বদলানো প্রথার বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে দেখা যায় অভিনেত্রীকে। বিয়ের পর বাবার পদবী নাকি স্বামীর পদবী? এই নিয়ে আবর্তিত হয় গল্পের প্লট। বলাবাহুল্য,উক্ত ফিল্ম এ অভিনেত্রীর অভিনয় যথেষ্ট সমাদৃত হয়েছিল ক্রিটিক্সমহলে!