অফবিট

সাইকেলের বাংলা মানে কি? প্রায় অধিকাংশ মানুষই ভুল উত্তর দিয়েছেন, আপনি কি জানেন?

বর্তমান যুগে উত্তরোত্তর বেড়েই চলেছে পরিবহন জ্বালানির মূল্য! পেট্রোল ও ডিজেলের আকাশছোঁয়া দুর্মূল্যের কারণে বেশিরভাগ মানুষই ঝুঁকছে সাইকেলের দিকে। বিশেষত মফস্বল এলাকায় এখনো সাইকেলের চাহিদা পূর্বের মতোই অনুরূপ রয়েছে। শহরাঞ্চলেও নেহাত কম সংখ্যক দেখা যায়না সাইকেল। বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে একটি ভালো কোম্পানির সাইকেল ক্রয় করতে খরচ হয় প্রায় চার হাজার টাকা এমনকি 10 থেকে 12 হাজার টাকাও।

অন্যদিকে দিন প্রতিদিন বেড়েই চলেছে ইলেকট্রনিক্স সাইকেল এর ব্যবহার। সময়োপযোগী যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে সাইকেলে বসানো হয়েছে মোটর আর সেই মোটরের কারণে বিনা প্যাডেলেই সাইকেলে করে এগিয়ে যাওয়া যায় বহুদূর। বিশেষ কিছু কোম্পানির ইলেকট্রিক সাইকেলের প্রায় 30 কিলোমিটার পর্যন্ত রেঞ্জ পাওয়া যায় এক চার্জেই যার মধ্যে Hero Lectro C1,C5x এবং F1 এই তিনটি সাইকেলে অত্যন্ত ভাল মানের এবং এতে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যালুমিনিয়াম ফ্রেম।

পরিবেশ দূষণরোধকারী এই পরিবাহকটিকে আমরা দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করে থাকলেও অনেকেই হয়তো জানি না এর বাংলা প্রতিশব্দ! তাই জানিয়ে রাখা ভাল ইংরেজি শব্দ সাইকেলের বাংলা প্রতিশব্দ হলো দ্বিচক্রযান। এছাড়াও ইতিহাস ঘাটলে জানা যায়, আধুনিক সাইকেলের প্রথম সূচনা হয়েছিল 1888 সালে। এছাড়াও নিত্যদিনের সাথী এই সাইকেলের আসল আবিষ্কারকের নাম জানেন কি?

আধুনিক সাইকেলের প্রথম উদ্ভাবকের নাম এখনো পর্যন্ত অজানা থাকলেও জানা যায় ফ্রান্সের পিয়ের মিশো এবং আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের পিয়ের লালেমেন্ট নামক দুই ব্যক্তি প্রথম প্যাডেল চালিত সাইকেলের আবিষ্কার করেন। তাই এখন থেকে নিত্যদিনের এই পরিবাহকটি ব্যবহারের সময় আশা করা যায় আপনাদের অবশ্যই মনে থাকবে তার নেপথ্য কাহিনী!