অফবিট

Potol Tola Meaning: পটল তোলা মানে মৃত্যু কেন? প্রায় ৯৯% লোকজনেরা সঠিক উত্তর দিতে পারেননি, আপনার জানা আছে তো?

পটল হলো নিত্যদিনের একটি অতি প্রয়োজনীয় সবজি। প্রতিদিনের খাবারের মেনুতে পটল অনায়াসেই জায়গা করে নেয়। পটলের কোরমা, দই পটল, পটল সরষে সহ আর ও কত রকমারি রান্না রয়েছে এই পটল দিয়ে। অনেকেই পটল খেতে খুব ভালোবাসেন বা খেয়ে থাকেন কিন্তু ভুল করেও কখনো পটল তুলবেন না। কারণ “পটল খাওয়া” আর “পটল তোলা”র মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য।

পটলের গুনাগুন নিয়ে আলাদা করে বলবার কিছু নেই। পটলে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে শর্করা, ভিটামিন, ক্যালসিয়াম, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এছাড়াও পটলে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম, গন্ধক ও ক্লোরিন রয়েছে। পটল আমাদের শরীরের ইমিউনিটি বাড়াতে সাহায্য করে। তাছাড়াও হজম শক্তি বৃদ্ধিতে এর জুড়ি মেলা ভার। জ্বর সর্দি কাশি থেকেও সাময়িক মুক্তি দেয় এই পটল। রোগ প্রতিরোধে সহায়ক পটল।

তবে এত উপকারী পটলের ক্ষেত্রে এমন বিদ্রুপ শব্দযোগ করা হয়েছে তা নিয়ে রয়েছে সকলের সংশয়। “পটল তোলা”র মতো এমন কথা কিভাবে পটলের সাথে জুড়ল এই ভাবনা রয়েছে সকলের মনে। পটল তোলার আক্ষরিক অর্থ হলো “মারা যাওয়া”। যার ইংরেজি প্রতিশব্দ হলো Die, Kick the bucket, Croak প্রভৃতি। যার প্রতিটির অর্থ হল মারা যাওয়া। তবে পটলের সাথে কেন মারা যাওয়া কথাটির জুড়েছে এর পেছনে রয়েছে যথার্থ কারণ চলুন জেনে নিই।

মূলত কোন ফলদায়ী পটল গাছ থেকে যদি সমস্ত পটল তুলে নেওয়া হয় তবে সে গাছটি মারা যায়। এই কারণেই এই বাগধারার সৃষ্টি। আবার অপরদিকে আরেকটি কারণ মনে করা হয় মারা যাওয়ার সময় সকলের চোখ উপরের দিকে উল্টে যায়। আর চোখের অপর একটি নাম হল “অক্ষিপটল”। যার ফলে এর থেকে মারা যাওয়া বোঝাতে “পটল তোলা” শব্দের ব্যবহার করা হয়। আবার এর কারণ হিসেবে কেউ কেউ মনে করেন, কেউ মারা গেলে তার পরিধেয় বস্ত্র বা পট তুলে রাখা হয়। সেই “পট তোলা” পরবর্তীতে “পটল তোলা”তে রূপান্তরিত হয়েছে।

Tags

Related Articles

Close