অফবিট

Bengali Jokes: প্রেমিকাকে নিয়ে রেস্তোরায় গেলেন প্রেমিক, অর্ডার শুনে চমকে গেলেন ওয়েটার

সময়ের সাথে সাথে মানুষের কাজের চাপ বেড়ে চলেছে। যার ফলে তাদের মধ্যে মানসিক চাপও ক্রমাগত বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে মানুষকে ইতিবাচক রাখে বিভিন্ন হাস্য-কৌতুক পূর্ণ বিষয়। আজ আমরা সেরকমই কিছু জোকস নিয়ে এসেছি যা দেখলে মন অনেকটাই ভালো হয়ে যায়।

সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ দিয়ে গাড়ি চালাচ্ছেন ট্যাক্সি ড্রাইভার, পেছনে বয়স্ক মানুষ বসে রয়েছেন। মহাজাতি সদনের কাছে আসতেই বয়স্ক মানুষটি ড্রাইভারের কাঁধে হাত রেখে বললেন ‘নামবো’। প্রচন্ড ভয় পেয়ে ড্রাইভার এদিক সেদিক চালিয়ে ল্যাম্প পোস্টে ধাক্কা মেরে ফুটপাতে উঠে পড়লেন।

এরপর বয়স্ক মানুষটি বললেন- ভাই কিছু মনে করবেন না। কাঁধে হাত রাখা ভুল হয়ে গেছে।
কাঁধে হাত রাখায় আপনি এতো ভয় পেলেন কেন? যার উত্তরের ট্যাক্সি ড্রাইভার বললেন- আজ প্রথম ট্যাক্সি চালাচ্ছি স্যার। আপনার কোনো দোষ নেই। আসলে গত ২০ বছর ধরে মেডিকেল কলেজে ডেডবডি টানার ভ্যান চালাতাম তো। কোনোদিন কেউ কাঁধে হাত রাখেনি।

একটা মেয়ে ও একটা ছেলে হোটেলে ডিনার করতে যাওয়ার পর, ওয়েটার বললো- আপনারা কী নেবেন?

উত্তরে বয়ফ্রেন্ড- ওই লঙ্কাগুঁড়ো দেওয়া রুটি নিয়ে এসো
ওয়েটার- কী? 
গার্লফ্রেন্ড- আরে পিজ্জা চাইছে।
অপহরণকারী- আপনার ছেলে এখন আমাদের কাছে।
মা- ওর সাথে কথা বলাও তো। ছেলেকে ফোন দিল অপহরণকারী। 
মা- ওখানে কী করছো? এখন আমার জন্য ধনেপাতা কে আনবে?
প্রশ্ন- বাঘ যদি আপনার শাশুড়ি এবং আপনার স্ত্রীকে একসাথে আক্রমণ করে তাহলে আপনি কাকে বাঁচাবেন?
স্বামী- এটা জিজ্ঞেস করার বিষয়? আমি অবশ্যই বাঘকে বাঁচাবো। পৃথিবীতে বেশি বাঘ বেঁচে নেই তাই তাদের বাঁচান।

Related Articles