অফবিটভাইরাল ভিডিও

৩৮ বছর পর জেগে উঠেছে বিশ্বের বৃহত্তম ভয়ঙ্কর আগ্নেয়গিরি, আতঙ্ক বাড়ছে হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে

দীর্ঘ ৩৮ বছর পর জেগে উঠেছে বিশ্বের বৃহত্তম আগ্নেয়গিরি, যার ফলে আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। হাওয়াইয়ের মাউনালোয়াতে অবস্থিত বিশ্বের এই বৃহত্তম সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মোওনা লোয়া। বিগ আয়ারল্যান্ডের আগ্নেয়গিরির সামিট ক্যান্ডেরায় ২৭ শে নভেম্বর থেকে এই অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়েছে। এছাড়াও আগ্নেয়গিরির তলায় ভূমিকম্পের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে যা নিয়ে উদ্বেগ ছড়িয়েছে এলাকায়। অনেকেই মনে করছেন এটিই হল অগ্ন্যুৎপাতের কারণ।

শেষবারের মত এই আগ্নেয়গিরিতে অগ্নুৎপাত হয়েছিল ১৯৮৪ সালে। সেই সময় ২২ দিন স্থায়ী হয়েছিল এই অগ্নুৎপাত। সেই সময় আশেপাশের বাসিন্দাদের বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার সতর্কবার্তা জানানো হয়েছিল। আবার অগ্নুৎপাত শুরু হওয়ায় গত সোমবার থেকে সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও আতঙ্ক ছড়িয়েছে চারিদিকে।

গত ২৮ শে নভেম্বর পর্যন্ত আগ্নেয়গিরির লাভা আর শিকড় পর্যন্ত ছিল কিন্তু অগ্ন্যুৎপাতের পর থেকেই সারা দ্বীপে লাভা প্রবাহ শুরু হয় আর তারপরেই শুরু হয় উদ্বেগ। ইতিমধ্যে ২০ লক্ষ মানুষকে সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে এবং জানানো হয়েছে অগ্নুৎপাত ঘটলে আগ্নেয়গিরি সজীব হয়ে যেতে পারে। ফলে এলাকা ছাড়ার সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে অগ্ন্যুৎপাতের ফলে সালফার ডাই অক্সাইডের মত ক্ষতিকর গ্যাসের পরিমাণ বাড়ছে, যা জীবজাতির জন্য অত্যন্ত বিপদজ্জনক। তবে এই এলাকার বায়ুর মান ভালো থাকলেও অগ্ন্যুৎপাতের ফলে বায়ুর মান খারাপ হতে পারে বলেই আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে মোট ছয়টি আগ্নেয়গিরি রয়েছে। ইউএসজিএস এর মতানুসারে মাওনা লোয়া এখনো পর্যন্ত প্রায় ৩৩ বার জেগে উঠেছে। এই অগ্নুৎপাতের বিষয়ে হাওয়াইয দ্বীপের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন এই অগ্নুৎপাতের ফলে সামিট এলাকাসহ বেশ কিছু এলাকায় রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত কোন উচ্ছেদের আদেশ দেওয়া হয়নি।