×

মনে আছে ‘ইয়ে দিল আশিকানা’র সুন্দরী নায়িকাকে? এখন পুরো চেহারা বদলে গেছে, চোখ ফেরাতে পারবেন না

মনে আছে ‘এ দিল আশিকানা’ এর নায়িকা কে। এখন দেখলে চিনতে পারবেন না। বলিউডে আজ অবধি কাজ করেছেন কত অভিনেতা অভিনেত্রী। কেউ পৌঁছেছেন সাফল্য, খ্যাতি, জনপ্রিয়তার শিখরে। আবার কেউ শরিয়ে গেছেন অন্ধকারে। কেউ মনে রাখেনি তাদের, মানুষ এক প্রকার ভুলেই গিয়েছে তাদের নাম। এমনই এক অভিনেত্রী হলেন ‘ইয়ে দিল আশিকানা’ (Yea Dil Aashiqanaa) খ্যাত অভিনেত্রী জীবিধা শর্মা (ActressJividha Sharma)। জীবিধা বলিউডে ক্যারিয়ারের শুরুতে হিট ছবি দিলেও পরবর্তীতে ইন্ডাস্ট্রিতে আর নিজের জায়গা ধরে রাখতে পারেননি। হারিয়ে গিয়েছেন বলিউড ইন্ডাস্ট্রি থেকে।

অভিনেত্রী জীবিধা শর্মা দিল্লির মেয়ে। ১৯৮০ এর ১০ই ডিসেম্বর জন্ম তার। ১৯৯৮ সালে মাত্র ১৮ বছর বয়সে তামিল ভাষার রোমান্টিক ছবি ‘কড়ালে নিম্মাধি’ (Kaadhale Nimmadhi) দিয়ে তিনি অভিনয় জীবনা হতে খড়ি হয় তার। পরের বছরই বিখ্যাত পরিচালক সুভাষ ঘাইয়ের হাত ধীরে বলিউডে পা রাখেন।

বলিউড ক্লাসিক ‘তাল’(Taal) ছবিতে পার্শ্বনায়িকার ভূমিকায় অভিনয় তিনি। তবে ২০০২ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ‘ইয়ে দিল আশিকানা’ (Yeh Dil Aashiqanaa) ছবির জন্যই সর্বাধিক পরিচিতি পেয়েছিলেন তিনি। ছবিটি বক্সঅফিসে খুব হিট করেছিল। ছবির গান গুলি আজও মানুষের মুখে মুখে ঘোরে। কিন্তু তারপর থেকেই কেমন হারিয়ে গেলেন জীবিধা।

আসলে সেই সময় সময়ের সমসাময়িক রানি মুখার্জি, কারিনা কাপুরের, কাজল, প্রীতিদের মধ্যে পড়ে বলিউডে নিজের ছাপ ফেলতে পারেননি। হিন্দি ছাড়াও বেশ করেকটি আঞ্চলিক ভাষাতেও যেমন পাঞ্জাবি, তামিল, তেলেগু ছবিতেও কাজ করেছিলেন। তবে সেখানেও তিনি বলিউডের মতো ব্যর্থ হয়েছিলেন। বলিউডে ব্যর্থ হয়ে, তিনি তেলেগু ছবি ‘যুবরত্ন'(Yuvarathnaa)-এর মাধ্যমে দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রিতে (South Film Industry) কাজ শুরু করেন। এরপর গুরুদাস মানের সঙ্গে ‘মিনি পাঞ্জাব'(Mini Punjab) ছবিতে তিনি কাজ করেন। পরবর্তীতে অল্প কিছু টিভি সিরিয়াল ও বিজ্ঞাপনেও কাজ করেন। তবে সেখানেও ব্যর্থই থেকেছেন।

বহু বছর বহু ব্যর্থতার পরে অভিনেত্রী জীবিধা শর্মাকে আবার ২০১৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত হৃত্বিক রোশান ও পূজা হেগড়ে অভিনীত মহেঞ্জোদারো (Mahenjodaro) ছবিতে ছোট্ট একটি চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়। এর বাইরে অভিনেত্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় খুবই এক্টিভ থাকেন। মাঝে মাঝেই নিজের সুন্দর সুন্দর ছবি ও ভিডিও তিনি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করতে থাকেন।