×

কোটি কোটি টাকা খসিয়ে ঢেকেছেন টাক! বলিউডের এই তারকাদের আসল চেহারা দেখলে চমকে যাবেন

আমরা অনেকেই জানি বলিউড সুন্দরীরা নিজেদের রূপ-লাবণ্য মেলে ধরার জন্য অনেকসম নানান কসমেটিক সার্জারির সহায়তা নিয়েছেন পূর্বেও। তবে আপনারা কি জানেন বলিউডের সুকুমার নায়কেরাও কিন্তু এদিক থেকে কিছু কম জান না! বিশেষত চুল পড়ার সমস্যায় ভুগতে থাকেন একাধিক নায়কেরা এবং যার ফলে তাদের মধ্যে বেশিরভাগজনই হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট এর দ্বারস্থ হয়েছেন পূর্বেও ও বর্তমানে। আজ আমরা জানবো বলিউডের এমনই কয়েকজন নায়কের কথা!

1)সালমান খান- জানাযায়, বহুবছর আগে থেকেই সালমান খান এলোপেশিয়া অর্থাৎ চুলপাড়ার সমস্যায় ভুগতে থাকেন এবং যার কারণে তাকে পার্মানেন্ট হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট এর দ্বারস্থ হতে হয়।

2)সানি দেওল- জানা যায়, সানি দেওলের বছর দুয়েক আগে থেকে মাথায় চকচকে ডাক দেখা দেওয়া শুরু হয় এবং সেই কারণে তিনি হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট করিয়ে নেন। বর্তমানে তার চুল দেখে বোঝার উপায় নাই সেই চুল আদেও আসল নয়।

3)অমিতাভ বচ্চন- বলিউডের এই বর্ষীয়ান অভিনেতা বর্তমানে আশির কোঠা পেরোলেও অভিনেতাকে দেখে বোঝার উপায় নেই সেই কথা। কেননা আজও তার মাথায় রয়েছে রং বাহারি চুল কিন্তু আপনারা কি জানেন এই চুল আদৌ আসল নয়।

4)রণবীর কাপুর- আপনারা শুনলে অবাক হবেন অনেক ছোট থেকেই চুল পড়ার সমস্যায় ভোগেন রানবির আর সেই কারণে ২০০৭ সালে পার্মানেন্ট হেয়ার ট্রান্সপ্লান্টের মাধ্যমে নিজের এই চুল পড়ার সমস্যা থেকে চিরকালের জন্য মুক্তি পান অভিনেতা।

5)কপিল শর্মা- বলিউডের এই জনপ্রিয় কমেডিয়ান অভিনেতার রয়েছে হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট। চুলপড়ার সমস্যা থেকে পার্মানেন্টলি মুক্তি পেতে হেয়ার ট্রান্সপ্লান্টের দ্বারস্থ হতে হয়েছিল তাকে।

7)অক্ষয় কুমার- বর্তমানে ৬০ ছুঁই ছুঁই বয়স বলিউডের খিলাড়ি কুমারের। ইতিমধ্যেই মাথায় রয়েছে এক ঢাল টাক। তবে তা কখনোই লোকসমক্ষে আনতে চান না তিনি। তাই ট্রান্সপ্লান্টই তার একমাত্র ভরসা।