বিনোদন

একছাদের তলায় থেকেও প্রিয় নাতনির মুখই দেখতে পান না অমিতাভ বচ্চন! আক্ষেপে চোখে জল শাহেনশার

তার জীবনে কাজের চাপ এতোটাই যে প্রাণের চেয়ে প্রিয় নাতনির সাথেও সময় কাটাতে পারেন না তিনি। সেই আক্ষেপের কথাই তিনি তুলে ধরলেন ‘কউন বনেগা ক্রোড়পতি’র মঞ্চে। ঠিকই ধরেছেন আজ আমরা কথা বলছি বলিউড ‘শাহেনশা’ অমিতাভ বচ্চনের সম্পর্কে। বয়স ৮০ পার হলেও এখনো কেরিয়ারে বেশ সক্রিয় রয়েছেন তিনি।

আরাম করার জন্য কোনো সময় নেই তার হাতে। সপ্তাহের ৬টা দিনই কাজে থাকতে হয় এই অভিনেতাকে। শো সঞ্চালনা থেকে শুরু করে সিনেমা সব মিলিয়ে বেজায় ব্যস্ত এই অভিনেতা। যার ফলে পরিবারের সাথে সময় কাটাতেও পারেন না তিনি। শুধু তাই নয় প্রিয় নাতনির মুখই নাকি দেখতে পান না অমিতাভ। সম্প্রতি একটি পর্বে তেমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

আসলে একটি পর্বে ক্ষুদে প্রতিযোগীরা হাজির হয়েছিল। সেখানেই হটসিটে বসার সুযোগ পেয়েছিল কলকাতার আয়াংশ ভালোটিয়া। এদিন আয়াংশের সাথে দাদু-ঠাকুমার গভীর সম্পর্ক দেখে ভাবুক হয়ে পড়েন অমিতাভ। এরপর তাকে ওই প্রতিযোগী জিজ্ঞেস করে আরাধ্যার সাথে কীভাবে সময় কাটান তিনি। যার উত্তর শুনে অবাক হয়ে গিয়েছেন সকলে।

কারণ তিনি জানিয়েছেন, ‘আমাকে প্রতিদিন সকাল সকাল বাড়ি থেকে বেরোতে হয়। তখন আরাধ্যা স্কুলে থাকে। আমি যখন কাজ শেষ করে বাড়ি ফিরি তখন ও ঘুমায়। আমরা খুবই কম সময় পাই একসাথে কাটানোর জন্য। কিন্তু রবিবার আমরা ভীষণ মজা করি। এখন ও বড়ো হয়ে গিয়েছে। আমরা কখনো কম্পিউটারে গেম খেলি, কখনো ফুটবল বা টেনিস খেলি’

পাশাপাশি তিনি এও জানিয়েছেন নাতনি তার ওপর মাঝেমধ্যেই রাগ করে, তখন বিশেষ উপায়ে রাগ ভাঙাতে হয় নাতনির। বলেন ‘আরাধ্যা রেগে গেলে আমি ওকে চকলেট দিয়ে রাগ ভাঙাই। আর মেয়েরা মাথায় যেটা পরে ও হ্যাঁ হেয়ার ব্যান্ড, গোলাপী ওর প্রিয় রং, তাই আমি ওর জন্য গোলাপী হেয়ার ব্যান্ড, ক্লিপ নিয়ে যাই ওর মন গলে যায়।’