নিউজরাজ্য

রাজ্যবাসীর জন্য কল্পতরু মমতা, এবার পুজোয় গ্রাম বাংলার মহিলাদের বিশেষ উপহার দিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী

একদিকে করোনা আবহ অন্যদিকে একের পর এক ঘূর্ণিঝড়ের আতঙ্ক সব মিলিয়ে বাংলায় এখন এক দুর্যোগময় পরিস্থিতি। তবে এইসবের মাঝেই বাংলার মানুষের জন্য একমাত্র আশা আলো মায়ের আগমনী। আর এই পরিস্থিতিতে বাংলার মা বোনদের জন্য এক অভিনব উদ্যোগ নিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিছুদিন আগে বাংলার মায়েদের জন্য লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প এনেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পটির সার্বিক ভাবে সফল মন্ডিত হয়েছে বাংলায়। আর এবার পুজোর আগে বাংলার মায়েদের জন্য আবার ভাবলেন নেত্রী।

আর কিছুদিনের মধ্যেই মা আসছেন মর্তে, মাকে আবাহন জানাতে সেজে উঠছে দিগ্বিদিক। পরিস্থিতি যতই অস্বাভাবিক থাকুক না কেন মায়ের আগমন যেন সমস্ত শোক দুঃখ হতাশাকে ভুলিয়ে দেয়। মাতৃ আরাধনায় মেতে উঠি আমরা সকলে। বছর পরে ঘরের মেয়ে উমা তার নিজের বাড়িতে ফেরেন আর তাই এই কটা দিন আমরা সকলেই উৎসবের আমেজে মেতে উঠি। তবে এমন বহু দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ রয়েছে যারা এই উৎসবেতেও আনন্দে মেতে উঠতে পারে না। কারণ এই উৎসবের দিনগুলিতেও তাদের গায়ে ওঠে না নতুন কাপড়। আর সেই মা-বোনদের জন্য এবার ভাবলেন মমতা।

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বাংলার মেয়েদের জন্য একাধিক প্রকল্প নিয়ে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, কখনো কন্যাশ্রী কখনো যুবশ্রী আবার কখনো লক্ষীর ভান্ডার এনে বাংলার মেয়েদের কাছে মমতাময়ী হয়ে উঠেছেন মুখ্যমন্ত্রী। লকডাউনের মধ্যে মানুষের মুখে অন্ন তুলে দিতে করেছেন বিনামূল্যে রেশনের ব্যবস্থা। আর এবার পুজোর আগে তিনি আরো একবার গ্রাম বাংলার মায়েদের জন্য এক উদ্যোগ নিলেন।

এবারের দুর্গা পুজো গ্রাম বাংলার মায়েদের আর মলিন বস্ত্র করে কাটাতে হবে না। কারণ রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে গরিব পরিবার গুলোতে বিনামূল্যে শাড়ি বিতরণ করার উদ্যোগ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই উদ্যোগের নাম দেওয়া হয়েছে ‘পুজোয় দিদির উপহার’। এর মাধ্যমে আসন্ন পূজার নতুন কাপড়ে সেজে উঠবেন বাংলার মা-বোনেরা। দুঃখ ভুলে ওইকটা দিন উৎসবের আমেজে মেতে উঠবেন সকলে। পাশাপাশি এইভাবেই পুজোয় প্রতিটি ঘরে ঘরেও পৌঁছে যেতে পারবেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর পাঠানো উপহার বাংলার মা-বোনদের কাছে থেকে যাবে স্মৃতি হিসেবে।

Tags

Related Articles

Close