অফবিট

করোনা চিকিৎসায় ব্যবহৃত পিপিই কিট আর মাস্ক দিয়ে তৈরি করলেন ‘ইট’, যুবককে কুর্নিশ নেটিজেনদের

করোনা ভাইরাসের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত নানা বর্জ্র পদার্থ। যার মধ্যে রয়েছে - পি.পি.ই কিট, মাস্ক ইত্যাদি। আর তা দিয়ে তৈরী হয়েছে 'ইট'.

Advertisement

করোনা ভাইরাসের চিকিৎসা সংক্রান্ত নানা রকম বর্জ্যপদার্থ দিয়ে তৈরী হয়েছে ‘ইট’. শুনতে অবাক লাগলেও এই জিনিস তৈরী করেছেন ‘ভারতের রিসাইকেল ম্যান’, যার আসল নাম বিনিশ দেশাই। এই যুবক গুজরাটের বাসিন্দা। তিনি বি.ডিরিমকোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা। এই কোম্পানির মূলত কাজ হলো বিভিন্ন বর্জ্র পদার্থ দিয়ে পুনরায় শিল্পজাত পদার্থ তৈরি করা। আর তাই এবার বেছে নেওয়া হয়েছে করোনা ভাইরাসের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত নানা বর্জ্র পদার্থ। যার মধ্যে রয়েছে – পি.পি.ই কিট, মাস্ক ইত্যাদি।

কিভাবে বানালেন এই ইট? বিনিশ দেশাই বিস্তারিতভাবে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এই ইট গুলি বানানো হচ্ছে ৫২% ছেঁড়া পি.পি.ই.কিট, ৪৫% কাগজ, এবং ৩% আঠা জাতীয় কোন পদার্থ দিয়ে। তারপর এই ইটগুলিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে কাছাকাছির কোন ল্যাবরেটরীতে। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরে এগুলি ব্যবহারযোগ্য করে তোলা হয়েছে। সরকারি ল্যাবরেটরি থেকে এই ইটগুলিকে ব্যবহারের যোগ্য বলে জানানো হয়েছে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, এই ইট জল এবং আগুন নিরোধক। দাম ও খুব কম। একটি ইটের দাম ২.৮ টাকা। তিনি চাইছেন যে সেপ্টেম্বর থেকে তার কাজ পুরোদমে শুরু করবেন। এই বর্জ্র পদার্থ গুলির সংগ্রহ করে ৭২ ঘন্টা ফেলে রাখা হয়। তারপরে এগুলিকে টুকরো টুকরো করে কাটা হয়। তারপরে কাগজের মন্ড সঙ্গে ভালো করে মাখা হয়। এইভাবে যদি বর্জ্য পদার্থ কে পুনর্ব্যবহারযোগ্য করে তোলা যায় তাহলে পরিবেশ অনেকটা দূষণমুক্ত করা যাবে।

সেন্ট্রাল পলিউশন কন্ট্রোল বোর্ডের সমীক্ষা অনুযায়ী, প্রতিদিন ১০১ মেট্রিক টন করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত বর্জ্র পদার্থ তৈরি হচ্ছে। অন্যান্য চিকিৎসা সংক্রান্ত বর্জ্য পদার্থ যোগ করলে তা হয় প্রায় প্রতিদিন ৬০৯ মেট্রিক টন। সুতরাং এই বর্জ্র পদার্থগুলি দিয়ে যদি পুনর্ব্যবহারযোগ্য কিছু গড়ে তোলা যায়, তাহলে তা পরিবেশের জন্য ভালো হবে।

Tags

Related Articles

Close