নিউজবিনোদন

গরিব রিকশা চালকের ছেলের স্বপ্ন পুরনে ৩ লাখ টাকা দান করলেন হৃত্বিক রোশন, প্রশংসার ঝড় নেট দুনিয়ায়

চলতি বছর করোনাভাইরাসের কালবেলায় সব মানুষের আর্থিক সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। দুরবস্থার শিকার একাধিক অভিনেতা থেকে সাধারণ মানুষ। তবে, এই পরিস্থিতিতে সাধারণের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে বহু সেলেব। সবারই জানা নাচ হলো অভিনেতা হৃত্বিক রোশনের প্রাণ ভোমরা। আর এবার সেই প্রাণ ভোমরার জন্যই এক রিকশাচালকের ছেলের স্বপ্নপূরণে শামিল হলেন হৃত্বিক।

নাচে একে অন্যকে কড়া টক্কর দিতে হৃত্বিক হলেন সিদ্ধহস্ত। নিজের অভিনয় থেকে শুরু করে পর্দায় উপস্থিতি, এক কথায় সকলকে কাবু করে রেখেছেন এই অভিনেতা। হৃত্বিক অভিনীত প্রতিটি ছবিতেই তাঁর ভক্তরা অপেক্ষায় থাকে এক ফ্লোর কাঁপানো নাচের। আর সেই ঋত্বিক করবেনা নাচের কদর তা কি কখনো হয়? আর সেইকারণেই এক ২০ বছরের তরুণের স্বপ্নপূরণের কাণ্ডারি হয়ে উঠলেন হৃত্বিক। পেশায় রিকশাচালকের ছেলের স্বপ্ন সে ব্যালে ডান্সার হবে। সেই ব্যালে ডান্সারের ট্রেনিংয়ের জন্য ৩ লক্ষ টাকা অর্থ সাহায্য করলেন অভিনেতা।

কিছুদিন আগেই দিল্লির বিকাশ পুরীর বাসিন্দা কামাল সিং নামে এক ২০ বছরের যুবক অর্থ সাহয্যকারী প্ল্যাটফর্ম ketto তে নিজের সমস্যার কথা জানিয়ে লেখে, ‘চার বছর আগে আমি কোনওদিন ব্যালের নামও শুনিনি। আমার বাবা একজন ই-রিক্সাচালক, আমি স্থানীয় একটি সরকারি স্কুলে লেখাপড়া করি সব সময়েই মনপ্রাণ চাইত নাচতে।ভাগ্যের ফেরে আমি যোগ দিই ম্যাসেরাট্রো ফেরনান্দো আগুইয়েরার নাচের ক্লাসে। যিনি নয়া দিল্লিতে একটি নাচের স্কুল চালান। সেখানেই জানতে পারি ব্যালে কাকে বলে’। সে আরও লেখে, সূদূর লন্ডনের দ্য ইংলিশ ন্যাশান্যাল ব্যালে স্কুল থেকে প্রথম ভারতীয় ডান্সার হিসাবে এক বছরের পেশাদার ট্রেনিং প্রোগ্রামে যোগ দেওয়ার সুযোগ পায় সে। যদি তা শেষ করে তবে সে ওই গ্রুপে ব্যালে ডান্সার হিসাবে নাচার সুযোগ পাবেন। শুধু তাই না মিলবে মাসিক বেতনও। কিন্তু ওই যে সখ থাকলেও সাধ্য নেই।কিভাবে সে যাবে ইংল্যান্ডে কিভাবেই সেখানে একবছর থাকবে খাবে সেই সবের জন্য প্রয়োজনীয় আর্থিক সামর্থ্য এক রিক্সাচালকের ছেলে হিসাবে তাঁর নেই।

একজন ট্যালেন্টেড ছেলে সে তার ট্যালেন্ট এর জন্য যেতে চাইছে আর শুধু পয়সার অভাবে যেতে পারবেনা সেটা কখনো হয় হৃত্বিক থাকতে। ট্যালেন্ট এর কদর করতে জানেন হৃত্বিক। ওই যুবকের সমস্যা কথা অভিনেতা জানতেই তিনি এগিয়ে আসেন। ইতিমধ্যেই কামালের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পৌঁছে গেছে প্রয়োজনীয় ৩ লক্ষ টাকা। আর সেই কথা নিজে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে জানায় কামালের গুরু ম্যাসেরাট্রো ফেরনান্দো আগুইয়েরা। কামাল সিংয়ের জন্য নিজের সংস্থা এইচআরএক্স ফিল্মসের মাধ্যমে এই বিপুল পরিমাণ অর্থ দিয়েছেন অভিনেতা। হৃত্বিক যে একজন শুধু বড় অভিনেতা, ভালো ডান্সারই নন একজন বড় মনের মানুষও তা তিনি প্রমাণ করে দিলেন।

Tags

Related Articles

Close