বিনোদন

সুশান্তের মৃত্যুর পর হাসপাতালের মর্গে ৪৫ মিনিট কি করেছিল রিয়া? ফাঁস হল গোপন তথ্য

প্রতিদিন নতুন নতুন করে পর্দা ফাঁস হচ্ছে সুশান্ত মৃত্যু কাণ্ডের। গত ১৪ জুন সুশান্তের মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই নানা মহলে তৈরি হয়েছিল বহু প্রশ্ন। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট বলেছিল আত্মহত্যা করেছেন সুশান্ত কিন্তু তা মানতে নারাজ অভিনেতার বাবা। সুশান্ত মৃত্যু কাণ্ডে সন্দেহের তালিকায় তিন রেখেছিলেন অভিনেতার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীকে। রিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগও দায়ের করেছিলেন অভিনেতার বাবা। এবার ফের শিরোনামে রিয়া। সম্প্রতি সামনে এসেছে এক গোপন তথ্য যা নিয়ে তুঙ্গে জল্পনা।

১৪ জুন সুশান্তের নিজের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় তার নিথর দেহ। মুম্বাই পুলিশ দেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য তা নিয়ে যায় কুপার হাসপাতালের মর্গে। আর সেখানে গিয়েছিলেন অভিনেতার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীও। সূত্রের খবর, সুজিত সিংহ রাঠোর নামে এক ব্যক্তি দাবি করেছেন মর্গের শোয়ানো সুশান্তের দেহ দেখে রিয়া চক্রবর্তী ক্ষমা চান। রিয়া সুশান্তের বুকে হাত রেখে বলেছিলেন ‘আমাকে ক্ষমা করো বাবু’। একটি ভিডিও সামনে এসেছে যেখানে দেখা যাচ্ছে যে মর্গে সুশান্তকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সেখানে প্রায় ৪৫ মিনিট ছিলেন রিয়া। কিন্তু এক নিষিদ্ধ জায়গায় এতক্ষণ কি করে থাকলেন অভিনেত্রী তা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। যদিও সুশান্তের শেষকৃত্যে উপস্থিত ২০ জনের মধ্যে রিয়া চক্রবর্তী ছিলেন না। রিয়ার আইনজীবীর জানান, ১৫ জুন শেষকৃত্যের সময় সুশান্তের পরিবারই রিয়াকে সেখানে আসতে দেননি।

অন্যদিকে,সুশান্ত মৃত্যু কান্ডের রহস্য ফাঁস করতে ময়দানে নেমে পড়েছে সিবিআই। নতুন করে সুশান্ত মৃত্যু কাণ্ডের তদন্তে নামার পর সিবিআই স্পষ্ট জানায়, এই মৃত্যু কাণ্ডে তদন্তের জন্য গঠিত সিট সুশান্তের বান্দ্রার ফ্ল্যাটে গিয়ে ক্রাইম সিন পুনরায় পর্যালোচনা করবে। ঘটনাস্থলে মুম্বই পুলিশের যে দলটি আগে পৌঁছেছিল, জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে তাদের প্রত্যেককেও। পাশাপাশি সিবিআই সেই সমস্ত লোকজনকেও পুনরায় জিজ্ঞাসাবাদ করবে যাদের ইতিমধ্যে মুম্বই পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে ফেলেছে। যতক্ষণ না মৃত্যুর সঙ্গে যুক্ত কোনো অভিযুক্ত সম্পর্কে তাদের হাতে উপযুক্ত কোনও প্রমাণ আসছে ততক্ষণ সিবিআই কারোকেই গ্রেফতার করবে না।

সূত্রের খবর, সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যুর অন্যতম সাক্ষী তাঁর রাঁধুনি। ইতিমধ্যেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ সেরে ফেলেছেন সিবিআইয়ের কর্তারা। সান্তাক্রুজে ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের অফিস ও বায়ুসেনার গেস্ট হাউসে জেরা করা হয় সুশান্তের কর্মীদের।

Tags

Related Articles

Close