খেলা

আমার বুকটা ফেটে যাচ্ছে! রায়নার অবসর নিয়ে মুখ খুলল স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা

শনিবার দেশের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসের দিন মহেন্দ্র সিং ধোনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন। ধোনির অবসর নেওয়ার কিছু সময় পরেই প্রিয় অধিনায়কের পথ অনুসরন করে দেশের ব্লু জার্সি খুলে রাখার সিদ্ধান্তের কথা সোশ্যাল মিডিয়াতে জানান সুরেশ রায়না। গত শুক্রবার ধোনি এবং রায়না চেন্নাই পৌঁছে গিয়েছিলেন। শনিবার চেন্নাই সুপার কিংস আইপিএলের জন্য তাদের প্রথম প্রাকটিস সেশন শুরু করেছে।

২০১৯ বিশ্বকাপ সেমি ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দেশের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলতে দেখা গিয়েছিল ধোনিকে। তারপর ধোনিকে আর নীল জার্সিতে দেখা যায়নি। এদিকে সুরেশ রায়না বহুদিন ইন্ডিয়ান ক্রিকেট টিমের বাইরে। ২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচে দেশের হয়ে শেষ খেলতে দেখা গিয়েছিল রায়নাকে। তাই দেশের টিমে কামব্যাক করার জন্য আইপিএলকে টার্গেট করেছিল রায়না। এই কারণে নিজের হোমটাউন উত্তরপ্রদেশে বহুদিন ধরে প্রাকটিস করছিল রায়না। তিনি ভিডিও শেয়ার করেছিলেন।

ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে সুরেশ রায়নার অনেক অবদান রয়েছে। মাত্র ৩৩ বছর বয়সে কেনো তিনি অবসরের পথে হাঁটলেন সেই নিয়ে অনেকের খটকা লাগছে। আবার ধোনির অবসর গ্রহণের দিনই তিনি এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নিলেন। তিনি কেনো হঠকারিতা করে এমন সিদ্ধান্ত নিলেন সেই নিয়ে অনেক ক্রিকেট প্রেমীর মনে প্রশ্ন জাগছে। কিন্তু ধোনি এবং রায়না দুজনেই আইপিএল খেলবেন। তাই খুব শীঘ্রই আইপিএলে অংশগ্রহণ করতে দুবাই উড়ে যাবেন রায়না এবং ধোনি।

সুরেশ রায়না ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা করার পর তার স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা চৌধরী রায়না টুইটারে একটি আবেগপ্রবণ পোস্ট করেন। প্রিয়াঙ্কা লেখেন,‘আমি এখনও হজম করতে পারছি না। তবে এটুকু বলতে পারি, গর্বে আমার বুক ফেটে যাচ্ছে। খুব গর্ব হচ্ছে। তোমার জন্য আমার হৃদয়জুড়ে শুধুই সম্মান।’ বহু ক্রিকেট প্রেমী এখনও রায়নার অবসর নেওয়াটাকে মেনে নিতে পারছেনা। অনেকের মতে,‘ রায়না চাইলেই টি-২০ ক্রিকেট এবং একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে কামব্যাক করে খেলতে পারতেন।’

Tags

Related Articles

Close