দেশনিউজ

পেটের জ্বালায় কাজে যেত ছোট্ট মেয়েটা, শরীরে নজর পড়লো বাড়ির মালিকের

১৩ বছরের এক নাবালিকাকে ধর্ষণ করতে না পেরে গায়ে পেট্রল ঢেলে দেয় অভিযুক্ত।

Advertisement

সামনেই পুজো। আর মাত্র কয়েকদিনের অপেক্ষা। আসছে মা দূর্গা। আর এই উৎসবের জন্য অপেক্ষায় রয়েছে সবাই। কিন্তু এই উৎসবের প্রাক্কালেও এক অমানবিক ঘটনার সাক্ষী থাকল দেশ। ফের নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটল। এবারের ঘটনা তেলেঙ্গানার। ১৩ বছরের এক নাবালিকাকে ধর্ষণ করতে না পেরে গায়ে পেট্রল ঢেলে দেয় অভিযুক্ত।

তেলেঙ্গানার খাম্মাম জেলাতে ১৩ বছরের নাবালিকা পরের বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করত। আর এই কাজ করেই সে সংসার চালাত। দুমুঠো অন্ন জোগাড় করতো। সে মুস্তফানগরীর এক বাড়িতে কাজ করতে যেত। আর সেই বাড়ির মালিক তাঁকে ধর্ষণ করতে আসে। সেইসময় তাঁকে বাঁধা দেবার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা চালায় সে। এরপর ওই মালিক তাঁকে ধর্ষণ করতে না পেরে গায়ে পেট্রোল ঢেলে দেয়। এরপর জ্বালিয়ে দেওয়া হয় আগুন।

আর ওই আগুনে জ্বলতে জ্বলতে একদম নিস্তেজ হয়ে যায় ওই নাবালিকা। তারপর পরিচয় লুকিয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পুলিশকে ওই মেয়ে সমস্ত কিছুর জবানবন্দি দেয়। এরপর তদন্ত শুরু হয়। আর তাঁর জবানবন্দিতে ধরা পড়ে অপরাধী। তবে এতদিনে একেবারে ঝিমিয়ে পড়েছে মাত্র ১৩ বছরের সেই মেয়ে। টানা দুই সপ্তাহ ধরে কঠিন লড়াই চালায় সে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। হার মানে নাবালিকা। মৃত্যু হয় তাঁর। এরকম ভাবেই একের পর এক নির্যাতনের ঘটনা ঘটে চলেছে দেশে।

Tags

Related Articles

Close