খেলা

ধোনির অবসরে ভাগ্য খুললো এই দুই ক্রিকেটারের, ভারতীয় দলে জায়গা প্রায় নিশ্চিত

গত ১৫ ই আগস্ট স্বাধীনতা দিবসের দিন সকলকে চমকে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ধোনি অবসর নেওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ক্রিকেটার ও বর্তমান সময়ের প্রখ্যাত ধারাভাষ্যকার ডিন জোনস মন্তব্য করেন, ভারতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির অবসরে দেশের দুই ক্রিকেটারদের কপাল খুলে গেলো। এই দুই ক্রিকেটার বলতে জোনস লোকেশ রাহুল এবং রিশভ পন্থের কথা বলতে চাইছেন। ডিন জোনস মনে করেন, ধোনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নেওয়ায় এই দুই ক্রিকেটারের জন্য দলে জায়গা পাওয়া অনেকটা সহজ হবে। ধোনির অবসর নেওয়ার পর জোনস টুইটারে লিখেছেন, ‘আমি বাজি ধরে বলতে পারব, মহেন্দ্র সিং ধোনির অবসরের পর লোকেশ রাহুল ও রিশভ পন্থ গত রাতে(শনিবার) শান্তিতে ঘুমিয়েছে।’

ধোনির অবসর নেওয়ার ফলে এই দুই ক্রিকেটারের খুশি হওয়ার পেছনে যথেষ্ট কারণ আছে। কারণ ভারতীয় ক্রিকেট দলে উইকেটরক্ষক হিসাবে ধোনির সাথে কারো তুলনা করা যায়না। উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়েই ধোনিকে কত হারা ম্যাচ জেতাতে দেখা গেছে। ধোনির অবর্তমানে উইকেটরক্ষক কে হবে সেই নিয়ে অনেকদিন ধরেই চলছে জল্পনা। ২০১৪ সালে ধোনি টেস্ট থেকে অবসর নেন। তারপর মাহির শূণ্যস্থান পূরণ করেন ঋদ্ধিমান সাহা। কিন্তু এতোদিন ধরে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে পাকাপোক্ত জায়গা এতদিন কারও ছিলনা। কিন্তু ধোনি অবসর নেওয়ায় লোকেশ রাহুল ও রিশভ পন্থের লড়াইটা অনেকটা সহজ হল।

ওয়ানডে ক্রিকেটে গত এক থেকে দেড় বছরে ধোনির অনুপস্থিতিতে উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে রিশভ পন্থ ও লোকেশ রাহুলকে দেখা গেছে। কিন্তু ধোনি ফিরলেই সেই জায়গা হয়তো তাদের ছাড়তে হবে এই চিন্তা তাদের মধ্যে অবশ্যই ছিল। কিন্তু ধোনি অবসর নেওয়া অনেকটাই স্বস্তি দিচ্ছে এই দুই ক্রিকেটারকে। ২০১৭ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় রিশভ পন্থের। কিন্তু সেরকম একটা ভালো খেলা উপহার দিতে পারেনি দলকে।

আর এদিকে লোকেশ রাহুল এই বছরের প্রথমের দিকে নিউজিল্যান্ড সফরে পাঁচটি ম্যাচে উইকেটকিপিং করেছিলেন। এমনকি ব্যাকআপ ওপেনার হিসাবেও ভালো খেলতে দেখা গিয়েছে রাহুলকে। ইতিমধ্যেই ৩২টি ওয়ানডেতে ১২৩৯ রান করে ফেলেছেন। যার গড় ৪৭.৬৬। এরমধ্যে ৪ টি সেঞ্চুরি রয়েছে । রাহুলের টেস্টেও যথেষ্ট রেকর্ড ভালো। ৩৬ টেস্টে তার সংরক্ষিত ২০০৬ রান। যার মধ্যে ৫ সেঞ্চুরি ও ১১ হাফসেঞ্চুরি । তবে এত ভালো পারফর্ম্যান্সের পরেও ভারতের দুই নিয়মিত ওপেনার রোহিত শর্মা এবং শিখর ধাওয়ানের কারণে দলে রাহুলের অবস্থান নিশ্চিত ছিল না।

Tags

Related Articles

Close