বিনোদন

সুশান্তকে চেন দিয়ে বেঁধে রাখত রিয়া, সামনে এলো আরেক চাঞ্চল্যকর তথ্য

Advertisement

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্য ক্রমশ জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে। উঠে আসছে এমন তথ্য যা আগে টের পাওয়া যায়নি। একটা এফআইআর সব হিসাব নিকাশ বদলে দিয়েছে রাতারাতি। গত কয়েকদিন আগেই আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর নামে এফআইআর করেছেন সুশান্তের বাবা কৃষ্ণ কুমার সিং। রিয়ার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সুশান্তের বাবার অভিযোগ রিয়ার নজর কেবলমাত্র সুশান্তের টাকার দিকে ছিল। সুশান্ত ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে শপিং আর বিদেশ ভ্রমণ ছাড়াও তিনটি কোম্পানি খুলেছিল যার অংশীদার ছিলা রিয়া ও তার ভাই। এছাড়াও সুশান্তকে জোর করে বান্দ্রার বিলাসবহুল ফ্ল্যাটে শিফট করায় রিয়া। এই অভিযোগ যে একেবারেই অমূলক নয় তাও সামনে এসেছে। দেখা গেছে সুশান্তের কার্ড থেকে এক বছরে 17 কোটি টাকা খরচ করেছে রিয়া।

এছাড়াও সূত্রের খবর থেকে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। মার্চ মাসে সুশান্তের এক বিশ্বস্ত দেহরক্ষীকে সরিয়ে দেন রিয়া। সুশান্ত মানসিক অবসাদ সম্পর্কে কোন রকম তথ্য চিকিৎসকের কাছে বাড়ির লোকের কাছে জানাতে দিতে চাইতেন না। বাড়ির সমস্ত দ্বায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেওয়ার অজুহাতে একপ্রকার সুশান্তকে কন্ট্রোল করতেন তিনি। সুশান্তকে চেন দিয়ে বেঁধে রাখতেন এমনও অভিযোগ করেছে সুশান্তর ঘনিষ্ঠরা।

একবার কড়া ডোজের ওষুধ খাইয়ে বাইরে সুশান্তের বন্ধুদের বলেছিলেন ওর ডেঙ্গি হয়েছে। সুশান্তর কাছে ভালো সাজার চেষ্টা করলেও তার পরিবার, বন্ধুদের থেকে সুশান্তকে দূরে সরিয়ে রাখতেন। সুশান্তের বাবার বক্তব্য – অঙ্কিতার মত মেয়ে সুশান্ত জীবনে থাকলে এরকম দুর্ঘটনা হতো না। অঙ্কিতাও জানান যে সুশান্ত তাঁকে বলেছিলেন যে রিয়া নাকি তাকে হেনস্থা করত।

আর এসব তথ্য সামনে আসা ও এফআইআর পর থেকেই নিখোঁজ রিয়া চক্রবর্তী। বিহারের পুলিশের তদন্তকারীদের একটি দল গত দুই দিন ধরে মুম্বাইয়ে রয়েছেন, আইনি নোটিশও গেছে তার বাড়িতে। তদন্তে সাহায্য না করলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

Tags

Related Articles

×
Close