×

না আছে গোলাপ, না আছে জাম, তবে কেন এই মিষ্টির নাম গোলাপজাম? 99% মানুষই উত্তর জানেন না

ভারতীয় সংস্কৃতিতে যেকোনো শুভ অনুষ্ঠান কিংবা শেষ পাতে মিষ্টি আবশ্যিক আর ভারতীয় মিষ্টিকুলের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় হলো গোলাপ জামুন বা গোলাপজাম। তবে এই মিষ্টির এমন অনন্য নামকরণের পেছনে রয়েছে এক বিরাট বড় ইতিহাস। গোলাপ জামুনে নেই কোন জাম আর নেই কোন গোলাপ তবুও কেন নাম গোলাপ জামুন? আসুন জেনে নেয়া যাক বিস্তারিত!

ইতিহাসবিদ মাইকেল ক্রানঞ্জল একসময় তার ইতিহাসের পাতায় জানিয়েছিলেন গোলাপজামুনের নেপথ্য। জানা গিয়েছিল পারস্য দেশের গোলাপজামুনেরই ন্যায় অপর একটি মিষ্টি তৈরি হয় যার নাম লোকমাত আল-কাঁদি। তুরস্কে তৈরী হওয়া প্রথম এই মিষ্টিটিকে শাহজাহানের দরবারে প্রথম নিয়ে আসেন তুরস্কের ব্যক্তিত্বরা এবং এরপর থেকেই সারা ভারতজুড়ে প্রচলন শুরু হয় গোলাপ জামুনের।

“গোলাপ বা গুলাব” এবং “জামুন” দুটি ভিন্ন শব্দের মিশ্রণে তৈরি গোলাপ জামুনের “গুল” মানে হল ফুল এবং “আব” কথার অর্থ হল জল। চিনির শরবত তৈরি করলে তার থেকে একটি মিষ্টি সুবাস নির্গত হয় আর সেটিকেই ফুলের মিষ্টি সুবাস এর সাথে তুলনা করা হয়েছে নামকরণের ক্ষেত্রে। অন্যদিকে “জামুন” শব্দটি এসেছে ময়দার খোয়া দিয়ে তৈরি গোলাপজামুন গুলিকে তেলে ভেজে গাঢ় রঙা তৈরি করে তোলার মধ্যে সাদৃশ্য দেওয়ার কারনে।

বর্তমানে ভারতে অত্যন্ত প্রচলিত এই মিষ্টিটিকে বিভিন্ন প্রদেশের বিভিন্ন নামে ডাকা হয়ে থাকে। বাঙ্গালীদের মধ্যে গোলাপ জামুন পরিচিত “পান্তুয়া” হিসাবে কোথাও আবার “কাটাঙ্গি” হিসেবেও পরিচিত এই বিশেষ মিষ্টির লোভনীয় পদ। দোকান থেকে শুরু করে বাড়িতে অতি সহজেই বানিয়ে ফেলা যায় এই মিষ্টান্নটিকে। তাই এখন থেকে গোলাপ জামুন খাওয়ার সময় তার ইতিবৃত্তান্ত ভুলবেন না যেন!