অফবিটরাজ্য

অসাধারণ শিল্পকলা, মুগ ডালের ওপর ভারতের মানচিত্র এঁকে রেকর্ড গড়লেন এই তরুণী

বিদিশার বাবা জানান, ছোটো থেকেই বিদিশার বড় শিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার স্বপ্ন। সেই কারণে ফুলের পাঁপড়ি, গাছের পাতা, চকের উপর ছোট থেকেই আঁকত বিদিশা।

প্রবল ইচ্ছাশক্তি দিয়ে যে অসম্ভবকে সম্ভব করা যায় তার প্রমাণ দিল উত্তরপাড়া মাখলা মাকালতলার বিদিশা মণ্ডল। খালি চোখে মুগ ডালের একটা দানার উপর গোটা ভারতবর্ষের মানচিত্র এঁকে রীতিমতো তাক লাগিয়ে দিয়েছে বিদিশা। এমনকি তার অসাধারণ এই কাজ ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে জায়গা করে নিয়েছে।

মাত্র ২.৫ মিমি জায়গার ওপর গোটা দেশের মানচিত্র আঁকার কথা যেখানে আমরা কল্পনাই করতে পারিনা সেখানে বিদিশা সকলের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল যে ইচ্ছা থাকলে কোনো কাজই অসম্ভব না। বিদিশার বাবা পরীক্ষিত মণ্ডল হিন্দমোটর কারখানায় কাজ করতেন। কিন্তু কারখানা বহুদিন বন্ধ থাকায় বাজারে সবজি বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছে পরীক্ষিত বাবু।

ছোট থেকেই রঙ তুলির ওপর বিশাল টান রয়েছে বিদিশার। তাই মেয়ের উচ্চশিক্ষার খরচ চালানোর পাশাপাশি অভাবের সংসারেও মেয়ের জন্য রঙ তুলির জোগান দিয়েছে বিদিশার বাবা। এখন সংসারের আর্থিক অভাব মেটাতে ছোট ছোট বাচ্চাদের আঁকা শেখাচ্ছেন বিদিশা। ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে মেয়ের কাজ জায়গা করে নেওয়ায় অত্যন্ত গর্বিত বিদিশার বাবা। অভাবের সংসারে কষ্ট করে আজ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে এম কম পাঠরাতা বিদিশা।

বিদিশার বাবা জানান, ছোটো থেকেই বিদিশার বড় শিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার স্বপ্ন। সেই কারণে ফুলের পাঁপড়ি, গাছের পাতা, চকের উপর ছোট থেকেই আঁকত বিদিশা। মুগ ডালের ওপর শুধু ভারতের মানচিত্র নয়, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, এপিজে আব্দুল কালাম, কাজী নজরুল ইসলাম এবং বলিউডের একাধিক অভিনেতা অভিনেত্রীরাও জায়গা পেয়েছেন। গত জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে ২.৫ মিমি মুগ ডালের ওপর ভারতের মানচিত্র এঁকে মনোনয়নের জন্য দিল্লি পাঠিয়েছিল বিদিশা। এবার সেটাই স্বীকৃতি পেয়েছে। এবার বিদিশার ইচ্ছা বিশ্ব রেকর্ড গড়ার। কিন্তু আর্থিক অনটনের মধ্যে বিশ্বরেকর্ড গড়ার জন্য প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে বিদিশাকে।

Tags

Related Articles

Close