×
Jannah Theme License is not validated, Go to the theme options page to validate the license, You need a single license for each domain name.

রাজস্থানের উটকে বিষাক্ত সাপ খাওয়ানো হয় কেন? প্রায় বেশিরভাগ মানুষই বলতে পারেন না

উট হলো রাজস্থানের প্রধান পশু

মরুভূমির জাহাজ “উট(Camel)” সাধারনত মরুভূমি অঞ্চলেই দেখা পাওয়া যায়। যার ফলে ভারতবর্ষের(India) রাজস্থানের(Rajasthan) থর মরুভূমিতে প্রচুর উট দেখা পাওয়া যায়। এছাড়াও রাজস্থানের পর্যটকদের আকর্ষিত করতে এবং কৃষিকাজ ও বিভিন্ন কাজে উটের ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। আর এই উটের সুরক্ষার জন্য রাজস্থান সরকার একাধিক সুরক্ষা ও উন্নয়ন নীতি শুরু করেছে। তবে আজকের প্রতিবেদনে আপনাদের উট সম্বন্ধে এমন একটি তথ্য জানাবো যা শুনলে আপনি অবাক হবেন।

বর্তমানে রাজস্থানের উট এর সংখ্যা দিন দিন কমছে। যা বর্তমানে দুই লাখেরও কম হয়ে দাঁড়িয়েছে। উট হলো রাজস্থানের প্রধান পশু। তবে এই উটদের মধ্যে এক বিচিত্র রোগ লক্ষ্য করা যায়। যার ফলে এই রোগ সারাতে এর প্রতিষেধক হিসেবে দেওয়া হয় এক আজব ঔষধ, যা হলো বিষাক্ত সাপ। শুনতে অবাক লাগলেও ঘটনাটি সত্যি। এখনো পর্যন্ত রাজস্থানে উটদের অসুখ সারাতে খাওয়ানো হয় বিষাক্ত সাপ।

সাধারণত মনে করা হয় তাদের এই অসুখ কোন বিষাক্ত পোকার কামড়ে হয়ে থাকে, যার ফলে উটের ঘাড়, পা শক্ত হয়ে যায়, জ্বর আসে এবং শরীরে ব্যথার সৃষ্টি হয়। এছাড়াও এই অসুখের ফলে উটদের শরীর ফুলে যেতে থাকে এবং দুর্বল হয়ে পড়ে। আর এই রোগে আক্রান্ত হলে দেশীয় টোটকা অনুযায়ী খাওয়ানো হয় বিষধর সাপ।

এক্ষেত্রে মনে করা হয় বিষধর সাপের বিষক্রিয়ার ফলে উটটি আরও অসুস্থ হয়ে পড়ে। যার ফলে উটের শরীরে তৈরি হয় এক রোগ প্রতিরোধকারী অ্যান্টিবডি, যা সাপের বিষের ক্ষতিকর প্রভাব রোধ করে। এইভাবে উটের শরীরে হওয়া অপর সংক্রমণটিও নষ্ট হয়ে যায়। এইভাবেই উটটি আস্তে আস্তে সুস্থ হয়ে ওঠে। তবে এইসব কারণে কয়েকদিন প্রচন্ড খিদে ও তৃষ্ণা অনুভব করে থাকে উটটি। বিশেষজ্ঞদের মতে, বহুদিন ধরে রাজস্থানে এই প্রচলিত ধারণা নিয়েই উটকে বিষধর সাপ খাওয়ানো হয়।