নিউজরাজ্য

পর্যটকদের জন্য সুখবর! এবার দিঘায় ‘সমুদ্রের নীচে’ তৈরি হবে সুড়ঙ্গ, বড় উদ্যোগ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের

জানা গেছে, সাবমেরিন মিউজিয়ামের সংলগ্ন জায়গায় গড়ে তোলা হবে এই আন্ডার ওয়াটার পার্ক

বাঙালির ঘুরতে যাওয়ার কথা উঠলেই সর্বপ্রথম মাথায় আসে “দিপুদা” অর্থাৎ দীঘা(Digha), পুরী(Puri), দার্জিলিং (Darjeeling) এর কথা। ছুটি পেলেই বাঙ্গালি ছুটে যান এই তিনটে জায়গায়। তবে সবচেয়ে হাতের কাছে যে জায়গাটি সেটি হল দীঘা। সারাবছর বহু মানুষ দীঘায় ভিড় জমান। তবে বর্তমানে দিঘাকে আরো ভালোভাবে সাজিয়ে তুলতে বদ্ধপরিকর হয়েছে রাজ্য সরকার। আর পর্যটকদের আরও আকর্ষণ করতে দীঘাই তৈরি করা হচ্ছে আন্ডার ওয়াটার পার্ক(Under Water Park)।

জানা গেছে, সাবমেরিন মিউজিয়ামের সংলগ্ন জায়গায় গড়ে তোলা হবে এই আন্ডার ওয়াটার পার্ক। এর ফলে জলের তলায় সামুদ্রিক দৃশ্য দেখতে পারবেন পর্যটকরা। এই সুরঙ্গটি তৈরি করা হবে আক্রলিকের। পর্যটকেরা সমুদ্রের তলদেশের পরিবেশ এবং সামুদ্রিক প্রাণীদের চলাফেরার লক্ষ্য করতে পারবে এর জলে পর্যটকদের জীব বৈচিত্রের প্রতি সচেতনতা বাড়বে এমনটাই মনে করছেন সকলে।

হাউজিং ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন(HIDCO) এই প্রোজেক্টের দায়িত্বে রয়েছে। ইতিমধ্যে তারা ভারত এবং আন্তর্জাতিক সংস্থায় এই প্রজেক্টের নকশা ও পরিকল্পনা জমা করেছে। সরকারি আধিকারিকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, এই আন্ডারওয়াটার পার্কটি সিঙ্গাপুরের ধাঁচে তৈরি করা হবে। টিকিট কেটে প্রবেশ করা যাবে এই আন্ডার ওয়াটার পার্কে। এই আন্ডার ওয়াটার পার্কের সঙ্গে সঙ্গে দীঘায় জগন্নাথ মন্দির তৈরীর পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে রাজ্য সরকার। এছাড়াও সাবমেরিন মিউজিয়াম তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে সরকারের তরফ থেকে।

তবে এই প্রজেক্ট বর্তমানে প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। সাধারণত এই ধরনের সুরঙ্গ তৈরি করার জন্য সমুদ্রের নিকটবর্তী কোন স্থানে সমুদ্রের জল প্রবেশ করিয়ে সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র তৈরি করা হয়। অন্যদিকে দীঘার জলে পলির পরিমাণ বেশি থাকায় সেই পলি সরিয়ে জল স্বচ্ছ করার ব্যবস্থাও করতে হবে। ষসুতরাং সব মিলিয়ে পরিবেশগত এবং জীব বিদ্যার দিক থেকেও এটি অনেক কঠিন হবে। তাই এই ধরনের পরিবেশগত ঝুঁকিগুলি খতিয়ে দেখতে হিডকো(HIDCO) অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থাকে আলোচনার দায়িত্ব দিতে চাইছে।

Related Articles