নদীয়া সংবাদনিউজরাজ্য

নদীয়ার শান্তিপুরের এক চিকিৎসক বাড়িতে গাছ লাগিয়েছেন মিশরীয় ডুমুরের, কঠিন রোগ নিরাময়ে সাহায্য করবে এই ফল

এই ফল মূলত কঠিন থেকে কঠিনতম রোগ নিরাময় করে।

মলয় দে নদীয়া:- শান্তিপুর পৌরসভার অন্তর্গত ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা পেশায় অধ্যাপক ডক্টর সোমনাথ কর তার বাড়ির ছাদে মিশরীয় ডুমুরের একটি গাছ লাগিয়েছেন।

শুধু এই গাছ নয়, এর পাশাপাশি বাংলাদেশর বারি মাল্টা, থাইল্যান্ডের বেল, বিভিন্ন প্রজাতির কুল, বিভিন্ন প্রজাতির পেয়ারা, আপেল, জামরুল, ব্ল্যাক পেয়ারা, থাই বাতাবি লেবু, মিষ্টি তেতুল, আমলকি, থাই সবেদা, হোয়াইট জাম, জামরুল, স্টার ফ্রুট, ভিয়েতনামের কাঁঠাল, ড্রাগন ফুট, মিরাকল ফ্রুট, জামির, চেরি ফলসহ বিভিন্ন প্রজাতির ফলের গাছ তার ছাদ বাগানে নিজের সন্তানের মত যত্ন করে বড় করে তুলেছেন।

এ প্রসঙ্গে অধ্যাপক সোমনাথ কর জানান, মূলত এই যে মিশরীয় ডুমুর আমাদের ভারতবর্ষে আগে সে ভাবে দেখা যেত না , কিন্তু বর্তমানে বেশ কিছু চাষ দেখা যাচ্ছে। বর্তমানে এই ডুমুরের উৎপাদন খুবই কম হওয়ার কারণে এর বাজার মূল্য অনেক বেশি। আমি আমার এক বন্ধুর মাধ্যমে এই ডুমুরের চারা সংগ্রহ করি। তারপর সেটি আমার বাড়ির ছাদ বাগানে টবে লাগাই খুবই যত্নের সাথে। গাছটি এখন ফল দেওয়ার পাশাপাশি ফল পাকা ও শুরু করেছে। এই ফল মূলত কঠিন থেকে কঠিনতম রোগ নিরাময় করে। কিন্তু ফলটি সাধারণ মানুষের হাতের নাগালের বাইরে। যার কারণে বাজারে এই ডুমুর পাওয়া প্রায় যায় না। আর এদেশীয় ডুমুরের সাথে এই মিশরীয় ডুমুর এর কোন সম্পর্ক নেই, এই ডুমুর সম্পূর্ণ আলাদা প্রজাতির একটি ফল।

Tags

Related Articles

Close