নিউজরাজ্য

কলকাতায় নতুন ইতিহাস, রূপান্তরকামীদের জন্য রয়েছে বড়সড় সুখবর

হাসপাতালের বেডের পর এবার বাসের সিট। রূপান্তরকামীদের জন্য সুখবর। মুখ টিপে হাঁসা। ফাঁকা সিটেও রূপান্তরকামীদের বসতে না দিয়ে অপদস্ত করা এবার থেকে বন্ধ। কারণ তিলোত্তমা ভাবে সকল ধরনের মানুষের কথা। আর তাই কলকাতার দুই রুটের বাসে এবার থেকে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য আসন সংরক্ষণের ব্যবস্থা চালু হল।

আমরা যতই আমাদের নিজেদেরকে লিবারেল বলি স্বাধীনচেতা বলি স্মার্ট বলি কিন্তু আদতে হয়তো আমরা তা নই। কারণ আজও মেট্রো হোক ট্রেন বা বাস তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের আজও গণপরিবহনের মহিলাদের আসনে বসলে হেনস্তা করা হয়। আমাদের শহরতলীত বহু এরকম ধরনের ঘটনা ঘটেছে।আর এতটাই খারাপ ভাবে ঘটেছে যে সেই মানুষকে সেই মুহূর্তে গণপরিবহন ছেড়ে নেমে যেতে হয়েছে। আর এইসব ঘটনা দেখে রুখে দাঁড়ালেন বাঁশদ্রোণীর ‘প্যাডম্যান’ খ্যাত শোভন। মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে নয়া উদ্যোগ নিল শোভন। তিনি ও স্থানীয় কাউন্সিল অনিতা কর মজুমদারের উদ্যোগে শহরে প্রথমবার তৃতীয়লিঙ্গের মানুষদের জন্য বাসে আসন সংরক্ষণ করা হবে।

যেমন ভাবা তেমন কাজ। চালু হয়ে গেল বাঁশদ্রোণী থেকে বাবুঘাটগামী ২০৫ ও ২০৫এ রুটের মোট ৩৬টি বাসে এই পরিষেবা। সূত্রের খবর, এই বাসগুলিতে দুটি করে আসন রূপান্তরকামীদের জন্য সংরক্ষণ করা হয়েছে। আসনগুলির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ত্রিধারা’। সাংকেতিক চিহ্নের মাধ্যমে আসনগুলি চিহ্নিত করা হবে। আর এই উদ্যোগের নেপথ্যে একমাত্র কলকাতার ‘প্যাডম্যান’ শোভন মুখোপাধ্যায়।

এই প্রসঙ্গে শোভন বলছেন, ‘তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য শহরের সমস্ত বাসে আসন সংরক্ষণের ব্যবস্থা করতে পারলে ভাল লাগবে’। অন্যদিকে তাঁর এই ভাবনার বাস্তবায়নে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে বাসমালিকদের সংগঠন জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেটস-এর কর্মকর্তা তপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ‘সমানাধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে পাশে রয়েছি। ব্যক্তিগত ভাবেও ওই উদ্যোগের পাশে থাকব। আগামী দিনে শহরের সব বেসরকারি বাসে তৃতীয় লিঙ্গের প্রতিনিধিদের জন্য আসন সংরক্ষণে উদ্যোগী হব’।

Tags

Related Articles

Close