দেশনিউজ

চীনের রক্তচাপ বাড়িয়ে দিলো ভারতের ‘নির্ভয়’, মুহূর্তে ধ্বংস হবে লাল ফৌজের ঘাঁটি

আগামী মাসেই সপ্তম দফার পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করা হবে এই নির্ভয় মিসাইলের।

Advertisement

চীনের বিরুদ্ধে সব দিক থেকেই প্রস্তুত থাকছে ভারত। এবার লাদাখ সীমান্তে ‘নির্ভয়’ মিসাইল মোতায়েন করল ভারত। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও ফৌজে অন্তর্ভুক্তি হয়নি এই শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্রটি। তবে এই অন্তর্ভুক্তিকরণের আগেই চীনকে উচিত শিক্ষা বেশ কয়েকটি মিসাইল ইউনিট প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় মোতায়েন করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, শুধু সীমান্তে নয়, দেশের গভীরে মজুত চীনের ঘাঁটি এবার ভারতীয় সেনা বাহিনীর মিসাইলের আওতায় চলে এসেছে।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, আগামী মাসেই সপ্তম দফার পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করা হবে এই নির্ভয় মিসাইলের। আর তারপরই ভারতের স্থলসেনা ও নৌসেনার হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেওয়া হবে এই ক্ষেপণাস্ত্র। এখনও যুদ্ধের পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি কিন্তু সীমান্তে প্রতিরক্ষা ও আক্রমণের ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে অনুষ্ঠানের আগেই বেশ কয়েকটি নির্ভয় মিসাইল সিস্টেম মিতায়েন করেছে নয়াদিল্লি।

এই শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্রটি তৈরী করেছে প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা (DRDO)। এটি সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি। আর কঠিন জ্বালানিতে চলা এই সাবসোনিক মিসাইল ১ হাজার কিলোমিটার পর্যন্ত আঘাত হানতে সক্ষম। শত্রুপক্ষের রাডারের চোখে ধুলো দিতে জমি বা সমুদ্রপৃষ্ট ঘেঁষে নিশানার দিকে উড়ান ভরে নির্ভয় মিসাইলটি। এরফলে খুব সহজেই চীনের গোলাবারুদের ঘাঁটি গুরিয়ে দিতে পারবে। তবে চীনও কিন্তু থেমে নেই, তিব্বত ও আকসাই চীনে ২ হাজার কিলোমিটার পর্যন্ত আঘাত হানতে সক্ষম মিসাইল সিস্টেম মোতায়েন করেছে লালফৌজ।

Tags

Related Articles

Close