দেশনিউজ

নতুন রাস্তা তৈরি হচ্ছে লাদাখে, এবার সেনাদের গতিবিধি নজরে আসবে না শত্রূপক্ষের

এবার ভারত সরকার মানালি থেকে লেহ পর্যন্ত এমন একটি রাস্তা নির্মাণের পরিকল্পনার কাজ শুরু করেছে যার ফলে ভারতীয় সেনারা শক্রদেশের নজরে না এসেই লাদাখে নিজেদের গতিবিধি চালাতে পারবে।

গত কয়েক মাস ধরে লাদাখে উত্তেজনার পারদ ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমনকি দেখা গিয়েছে শক্রদেশের সেনারা ভারতের মধ্যে ঢুকে আসছে বিভিন্ন কৌশলে। এবার ভারত সরকার মানালি থেকে লেহ পর্যন্ত এমন একটি রাস্তা নির্মাণের পরিকল্পনার কাজ শুরু করেছে যার ফলে ভারতীয় সেনারা শক্রদেশের নজরে না এসেই লাদাখে নিজেদের গতিবিধি চালাতে পারবে। এই রাস্তা বাকি দেশের সাথে যুক্ত করবে এই প্রদেশকে। বিগত ৩ বছরে ভারত দৌলত বেগ ওল্ডি সহ রণকৌশলের দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ উত্তর সাব সেক্টরের বিকল্প যোগাযোগ স্থাপন করার কাজ করছে। আর সেই মাফিক, বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু মোটরেবল রোড খারদুং লা পাসের কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে।

সংবাদ সংস্থা ANI সূত্রে জানা গিয়েছে, বিভিন্ন এজেন্সি গুলো মানালি থেকে লেহ পর্যন্তের জন্য নিমু-পদম-দরচা এক্সিস থেকে হয়ে বিকল্প সম্পর্ক স্থাপন করার কাজ করছে। এই বিকল্প রাস্তার জন্য জোজিলা পাশ হয়ে শ্রীনগর, আর সরচু হয়ে মানালি থেকে লেহ যাওয়ায় আগের তুলনায় অনেক সময় কম লাগবে। যখন এই রাস্তা তৈরি হয়ে যাবে তখন মানালি থেকে লেহ পৌঁছাতে এখনের তুলনায় প্রায় ৩ ঘণ্টা সময় কম লাগবে বলে জানা গেছে।

সবথেকে বড় দিক হল, এই রাস্তা তৈরি হয়ে গেলে যখন সেনা বা কোনো সামরিক সামগ্রী মোতায়েন করা হবে তখন পাকিস্থান সহ অন্যান্য শত্রুদেশ ভারতীয় সেনার গতিবিধি বুঝতে পারবেনা। বর্তমানে জোজিলা পাশ হয়ে যে রাস্তা যায় সেই পথ ধরেই সামরিক সামগ্রী এবং সেনাদের নিয়ে যাওয়া হয়। ১৯৯৯ সালে ভারত-পাকিস্থান যে কার্গিল যুদ্ধ হয়েছিল তখন পাকিস্থান সেনারা এই রাস্তাকেই প্রধান নিশানা করেছিল।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, এই রাস্তার কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। এই নতুন রাস্তা নিমুর সাথে মানালি এবং লেহকে যুক্ত করবে। কিছুদিন আগেই যখন সীমান্তে ভারত-চীন যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল এবং দুই দেশই নিজেদের শক্তি বাড়াতে সীমান্তে সেনা সহ নানা সামরিক সামগ্রী মোতায়েন করছিল তখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিমু বেসে গিয়ে সেনা জওয়ানদের মনোবল বৃদ্ধি করেছিল।

Tags

Related Articles

Close