দেশনিউজ

দেশে থাবা বসাল নতুন আতঙ্ক, নেই কোনও ভ্যাকসিন, মাথাব্যথা বাড়াচ্ছে ‘কঙ্গো জ্বর’

মূলত পশুদের শরীরে থাকা পোকা বা টিকার মাধ্যমে মানুষের শরীরে সংক্রমিত হয়।

করোনা মহামারীর মধ্যেই ফের আরেক রোগের উপদ্রব ঘটেছে ভারতে। এই রোগের নাম কঙ্গো ফিভারবা কঙ্গো জ্বর বা Crimean Congo Hemorrhagic Fever বা CCHF এক জাতীয় ভাইরাল অসুখ। এটি মূলত পশুদের শরীরে থাকা পোকা বা টিকার মাধ্যমে মানুষের শরীরে সংক্রমিত হয়। ইতিমধ্যেই এই রোগ মহারাষ্ট্র, গুজরাতে ছড়িয়ে পড়েছে।

এই কঙ্গো জ্বর খুব ছোঁয়াচে। এটি সংক্রমিত ব্যক্তির রক্ত, কফ, লালা, ঘাম বা অন্যান্য বডি ফ্লুইডের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে যে হাসপাতালে ঠিকমত স্টেরিলাইজ করা নেই এরকম চিকিৎসার সরঞ্জামের মাধ্যমেও এই রোগ ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া সংক্রমিত পশুর রক্ত, লালার মাধ্যমে মানুষের দেহে ঢুকে পড়ে এই প্রাণঘাতি ভাইরাস। আর এই সংক্রমিত পশুর মাংস খেলেও এই ভাইরাস সংক্রমিত হয়।

পালঘর পশুপালন বিভাগের ডেপুটি কমিশনার ডঃ প্রশান্ত ডি কাম্বলে জানিয়েছেন যে গুজরাতের কয়েকটি জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে কঙ্গো জ্বর, মহারাষ্ট্রের সীমান্ত জেলাগুলিতেও ছড়িয়ে পড়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। তবে চিন্তার বিষয় হল, করোনার মতো কঙ্গো জ্বরেরও কোনও ভ্যাকসিন নেই, কোন চিকিৎসাও শুরু হয়নি।

Tags

Related Articles

Close