দেশনিউজ

২৮ বছর পর আজ বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায়, জেনে নিন এই মামলার ক্রোনোলজি

১৯৯২ সালে ৬ই ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ১০ মাস পর চার্জশিট পেশ করে সিবিআই।

ভারতের ইতিহাসে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় বুধবার অর্থাৎ আজ। এই মামলা চলছে গত ২৮ বছর ধরে। মোট ৩২ জন অভিযুক্তের মধ্যে ১৬ জন আগেই প্রয়াত। তবে এই বাবরি মসজিদের সুপ্রিম কোর্টের রায়ে অযোধ্যা জমি বিতর্কর প্রভাব পর্বে কিনা তাই নিয়ে জোর জল্পনা চলছে। ১৯৯২ সালে ৬ই ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ১০ মাস পর চার্জশিট পেশ করে সিবিআই। অভিযুক্তদের তালিকায় অনেকের নাম ছিল।

যার মধ্যে প্রথম সারির নেতাদের মধ্যে নাম ছিল লালকৃষ্ণ আডবাণী, মুরলী মনোহর জোশী, উমা ভারতীর। এছাড়া উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিং, বিজেপি নেতা বিনয় কাটিয়ার, সাক্ষী মহারাজ, ভিএইচপি নেত্রী সাধ্বী ঋতম্ভরা এবং রাম জন্মভূমি ট্রাস্টের সভাপতি নৃত্য গোপাল দাস ও সম্পাদক চম্পত রাইয়ের নাম চার্জশিটে দেয় সিবিআই। এরকম মোট ৪৮ জন অভিযুক্তের নাম ছিল। এদের মধ্যে ১৬ জন মারা গিয়েছেন। এদের মধ্যে ছিলেন বিশ্বহিন্দুপরিষদ নেতা অশোক সিঙ্ঘল, গিরিরাজ কিশোর, বিষ্ণুহরি ডালমিয়া ও শিবসেনা সুপ্রিমো বাল ঠাকরে।

এই ঘটনার পরে ২টি এফআইআর দায়ের করে সাবেক ফৈজাবাদ জেলায় পুলিস। ১৯৭ নম্বর এফআইআরে অজ্ঞাতপরিচয় কয়েক লক্ষ করসেবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়। লখনউয়ের আদালতে শুরু হয় মামলা। তারপর ১৯৮ নম্বর এফআইআরে আডবাণী, জোশী, উমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করা হয়। রায়বরেলির আদালতে শুরু হয় মামলা। ১৯৯৩ সালের ২ অক্টোবরে এই মামলার যৌথ চার্জশিট দেয় সিবিআই।

সিবিআই ৪৮জন নেতার বিরুদ্ধে মসজিদ ধ্বংসে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনে। ২০০১ সালে আডবাণী-সহ ১৪ জন নেতাকে, ষড়যন্ত্রের অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয় নিম্ন আদালত। এরপর এত বছর ধরে মামলা চলছে। ২০১৭ সালে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ছিল, নিয়মিত শুনানি করে ২ বছরের মধ্যে মামলার নিষ্পত্তি করতে হবে। একাধিকবার সেই সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। আর আজ সেই মামলার রায় দেবে।

Tags

Related Articles

Close