নিউজরাজনীতিরাজ্য

বাংলায় বাড়ি ভাড়া নিতে গেলেও কাটমানি, কেন্দ্রের দেওয়া জলের টাকাতেও দুর্নীতি! তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মোদি

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলার মানুষকে পাশে থাকার বার্তা দিলেন ভোটের লক্ষ্যে এসে। সোমবার শাসকদল তৃণমূলের নানা ‘দুর্নীতি’র প্রসঙ্গ টেনে মোদি সুর চড়ান হুগলির সাহাগঞ্জের সভা থেকে। পানীয় জল না পাওয়ার প্রসঙ্গও সেই তালিকায় টেনে আনেন। মোদির দাবি, ‘বিশুদ্ধ পানীয় জল পাচ্ছেন না বাংলার মানুষ। এ নিয়ে কোনও মাথাব্যথাই নেই তৃণমূল সরকারের।’ মোদির দাবি তৃণমূল বড়োসড়ো কারসাজি করছে কেন্দ্র যে টাকা পানীয় জল বাংলার মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে পাঠিয়েছে সেখানেও।

মোদির অভিযোগ তৃণমূল পানীয় জলের টাকাও চুরি করেছে। প্রধানমন্ত্রী কটাক্ষ করেন বাংলার মেয়েরা বঞ্চিত বলে। তাঁর বক্তব্য, ‘তৃণমূল সরকারকে ১৭০০ কোটির বেশি টাকা কেন্দ্র দিয়েছে প্রত্যেক ঘরে পানীয় জল পৌঁছে দিতে। কিন্তু মাত্র ৯ কোটি টাকাই খরচ করা হয়েছে এর মধ্যে থেকে। নিজেদের পকেটে ভরেছে ১১০০ কোটি টাকা। জল পাওয়া কি উচিত নয় প্রত্যেক বাংলার মেয়েদের? আপনারা কি এদের ক্ষমা করবেন? এই জন্য বাংলায় পদ্ম ফোটানো জরুরি যাতে পরিবর্তন সঠিক অর্থেই এখানে আসতে পারে।’

প্রধানমন্ত্রীর আরো দাবি, বাংলায় গরিবরা কিছু পায়নি, শুধুই তৃণমূল নেতাদের সম্পত্তি, প্রতিপত্তি বেড়েছে। আজ তৃণমূল সরকারের তোলাবাজির জন্য আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের ৫ লক্ষ টাকা থেকে বঞ্চিত বাংলার মানুষ। কৃষি প্রকল্প থেকে বঞ্চিত বাংলার কৃষকরা। মোদির আশ্বাস, ‘সেই বাংলা গড়ে তুলতে হবে যেখানে তোলাবাজি হবে না, তোষণের রাজনীতি হবে না, শুধু উন্নয়ন হবে। অন্য রাজ্যের তুলনায় অনেক এগিয়ে ছিল বাংলা। কিন্তু মা-মাটি-মানুষের সরকার বাংলাকে পিছিয়ে দিয়েছে। তাই গড়ে তুলতে হবে তোলাবাজি মুক্ত ও রোজগার যুক্ত বাংলা।

এদিন সিন্ডিকেটরাজ ও কাটমানি নিয়েও তৃণমূল সরকারকে তীব্র কটাক্ষ করেছেন মোদি। তাঁর অভিযোগ, এই কাটমানি এবং সিন্ডিকেটের দাপটেই বাংলার শিল্পবান্ধব পরিবেশই নষ্ট হয়ে গিয়েছে৷ আজ বাংলায় বাড়ি ভাড়া নিতে গেলেও দিতে হয় কাটমানি।

Tags

Related Articles

Close