দেশনিউজ

ভালো কোথায় কাজ না হলে সেনা আছে, চীনকে যুদ্ধের হুঁশিয়ারি ভারতের?

গত ১৫ জুন লাদাখ সীমান্তে ইন্দো-চীন সংঘাতের পর থেকেই উত্তপ্ত রয়েছে সীমান্ত। ভারত বারবার চীনের সাথে এই সীমান্ত নিয়ে সমস্যা মেটানোর চেষ্টা করছে। একাধিকবার দুই দেশের মধ্যে বৈঠক ও হয়েছে। কিন্তু কোনো সুরাহা মেলেনি। চীন একের পর এক মতলব করেই চলেছে। তবে এবার ভারতের চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত চীনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, লাদাখ সীমান্ত থেকে চীনের সেনা না সরালে ভারতের কাছেও সেনা অভিযানের রাস্তা খোলা আছে। তবে এই মুহূর্তে ভারত ও চীনের মধ্যে কোন পর্যায়ে আলোচনা চলছে, তা নিয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।

তিনি আরও বলেন যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল আর রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার সাথে জড়িত বড় বড় অফিসাররা সমস্ত রকম বিকল্পের সমীক্ষা করছেন। প্রসঙ্গত, জুলাইয়ের শেষে উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়েছিল যে প্যাংগং লেকের ধারে ৫ নম্বর ফিঙ্গার পয়েন্টের কাছে ঘাঁটি গেড়ে বসেছে লালফৌজ। সেখান থেকে একটুও সরেনি চীন। এমনকি ৬ নম্বর ফিঙ্গার পয়েন্টেও সেনা বাড়িয়েছে চীন। আরও সেনা বাড়ানোর চেষ্টা চালাচ্ছে চীন।

চীনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য সবরকমভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছেও ভারত। তবে এবার সেনা প্রধান হুমকি দিয়েছেন। সংবাদসংস্থা এএনআইকে তিনি জানিয়েছেন যে লাদাখে চীনা আগ্রাসন প্রতিহত করার জন্য সেনা অভিযানের বিকল্প রাস্তা খোলা আছে। তবে সেটা শুরু করা হবে কূটনৈতিক এবং সামরিক স্তরের আলোচনা বের্থ হবার পর।

উল্লেখ্য, ভারতের সেনা প্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত ডোকালামে ২০১৭ সামে ৭৩ দিন পর্যন্ত চলা সৈন্য গতিরোধের সময় সেনাপ্রধান ছিলেন। তবে ডোকলামের থেকে এই পরিস্থিতি অনেক বেশি জটিল ও উত্তপ্ত। তবে ভারত কোনমতেই লাদাখ থেকে পিছু হটবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে। চীনকে কড়া বার্তা দিতে লাদাখে হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করছে ভারত। এর সাথেই লড়াকু বিমানও মোতায়েন করেছে ভারত।

Tags

Related Articles

Close