নিউজরাজ্য

Child Fever: চোখ রাঙাচ্ছে RS Virus, অভিভাবকদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা

একদিকে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের ভয় অন্যদিকে অজানা জ্বরের আতঙ্কে কাটা হয়ে রয়েছে মানুষ। পুজোর আগে এই অজানা জ্বর চিন্তায় ফেলেছে সকলকে। এই জ্বরের কারণ, উৎস, উপসর্গ সবকিছু নিয়েই প্রচুর প্রশ্ন রয়েছে মানুষের মনে। চিকিৎসকেরা জানাচ্ছেন, এই অজানা জ্বরের প্রায়ই ২০ শতাংশই হচ্ছে আরএস ভাইরাসের (RS Virus) কারণে। আরএস ভাইরাসের পুরো নাম Respiratory Syncytial Virus (RSV)।  

উপসর্গ : জ্বর, সর্দি, নাক দিয়ে জল ঝরা, শ্বাসকষ্ট, খেতে সমস্যা, জল খেতে সমস্যা, আঙ্গুল ও ঠোঁটের ডগা নীল হয়ে যাওয়া। উপসর্গগুলি থেকেই সমস্যা জোরালো হচ্ছে। যদিও শরীরে এই লক্ষণগুলি থাকলে কি কারণে জ্বর হচ্ছে তা বোঝার উপায় নেই। যেহেতু অন্যান্য সাধারণ জ্বরের ক্ষেত্রেও এই ধরনের উপসর্গ দেখা যায়।

চিকিৎসকদের একাংশ বলছেন, লক্ষণ গুলি দেখে রোগ ধরতেই অনেকটা সময় লেগে যাচ্ছে। যার ফলে চিকিৎসা শুরু করতেই অনেকখানি দেরি করে ফেলছেন অভিভাবকেরা, আর এতেই বাড়ছে বিপদ। কেউ আবার বলছে, করোনার আসন্ন তৃতীয়ত তরঙ্গে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা সবথেকে বেশি। সেই ভয়ে অনেক অভিভাবক শুরুতেই চিকিৎসকদের কাছে শিশুদের নিয়ে আসছেন যার ফলে চিকিৎসা তাড়াতাড়ি শুরু করা সম্ভব হচ্ছে। যার কিছু ক্ষেত্রে বিপদ এড়ানো যাচ্ছে।

এই বিষয়ে চিকিৎসকেরা শুধুমাত্র শিশুদেরই নয় অভিভাবকদেরকে ও সতর্ক থাকতে বলেছেন। চিকিৎসকদের মতে, বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ আসার সাথে সাথেই এই নতুন ভাইরাসের বাড়বাড়ন্ত বেড়েছে। এই ভাইরাসটি সংক্রমক, শিশুদের সুরক্ষায় অভিভাবকদের মাস্ক ব্যবহার করার ক্ষেত্রে জোর দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা। কারণ এই ভাইরাস বয়স্কদের থেকে শিশুদের মধ্যে এবং শিশুদের থেকে বয়স্কদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটাতে পারে। সেইসঙ্গে এই ভাইরাসের ফলে মৃত্যুর আশঙ্কা এড়ানো যাচ্ছে না। তাই চিকিৎসকেরা অভিভাবকদের সতর্ক ও সচেতন থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন।

Tags

Related Articles

Close