দেশনিউজ

এক বছরের মধ্যেই ভারতে হামলা চালাবে পাকিস্তান-চীন-তালিবান!

আফগানিস্তান দখল করে নিয়েছে তালিবানরা। আর এবার বিজেপির সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী উদ্বেগ প্রকাশ করে হুঁশিয়ারি দিয়ে বসলেন। সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর কথায়, আর এক বছরের মধ্যেই ভারতের উপরেও নেমে আসবে আক্রমণ। চীন পাকিস্তান ও তালেবানের মিলিত জোট ভারতের উপর চালাবে এই আক্রমণ।

15 ই আগস্ট তালিবানরা আফগানিস্থান দখল করার পরেই উদ্বেগ বেড়েছে ভারতের প্রতিরক্ষা মহলে। গত দুই দশক ধরে আফগানিস্তান ছিল ভারতের বন্ধু দেশ, সেই কারণে আফগানিস্থানের থেকে সন্ত্রাসবাদীদের কার্যকলাপ কমে এসেছিল অনেকটাই। যার প্রভাবে বিপাকে পড়ে ছিল পাকিস্তান। তবে গত রবিবার থেকে বদলে গিয়েছে ছবিটা। কাবুল সরকারের সিংহাসনে এখন পাকিস্তান ঘনিষ্ঠ তালিবানরা অধিষ্ঠিত হয়েছে। আফগানিস্থানে এখন লস্কর, জইশের মতো ভারতবিরোধী জেহাদি দল বিচরণ করে বেড়াচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে বিজেপির রাজ্যসভা সংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর আশঙ্কা চীন এবং পাকিস্তানের সঙ্গে মিলে ভারতীতেও হামলা চালাবে তালিবানরা। স্বামী টুইট করে লেখেন, ‘যারা অপেক্ষাকৃত কম উগ্র তাদের প্রথম বছর সরকারের মুখ করা হবে। একইসময়ে, প্রাদেশিক রাজধানীগুলিতে উগ্র তালিবান নেতাদের শাসন কায়েম করা হবে। তার একবছর পর আফগানিস্তানে শিকড় মজবুত করে তালিবান, চিন ও পাকিস্তান হামলা চালাবে ভারতে’।

স্বামীর এই আশঙ্কা যে একেবারে অগ্রাহ্য করার মতো নয় তা স্বীকার করেছে বিশ্লেষকদের একাংশ। কারণ এবার পাকিস্তান ভারতের কাশ্মীরে হাক্কানি নেটওয়ার্ক, জইশ, লস্করের মতো জঙ্গি সংগঠনগুলিকে পাঠাতে শুরু করবে। আর এইসব জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে আফগানিস্তানের মাটিতে। তাই সমস্ত কিছুর রুখতে সুব্রহ্মণ্যম স্বামী আবেদন করেছেন তালিবানবিরোধী সমস্ত শক্তিতে মদত দিয়ে ভারতে ‘নির্বাসিত আফগান’ সরকার গঠন করার। অন্যদিকে তালিবানরা কাবুলে নিজেদের সরকার গঠন করার কাজ শুরু করে দিয়েছে । তালিবানি সরকার গঠন হলে তার স্বীকৃত হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য বর্তমানে ভারত ‘ওয়েট অ্যান্ড ওয়াচ’ নীতি গ্রহণ করেছে। কিন্তু সাউথ ব্লকে বাড়ছে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি।

Tags

Related Articles

Close