নিউজরাজ্য

‘শুভশ্রীর ছেলেটা খুব স্মার্ট’, ‘রাজশ্রী’ পুত্র ইউভানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

অগ্নিগর্ভ মুখ্যমন্ত্রী এদিন স্পষ্টতই জানান,"আজকাল দেখছি নিজের মতামত দিলেও সেখানে অন্যান্য কথা বলা হচ্ছে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর কথা বললেও মুশকিল

শিশু মাত্রই একরাশ সারল্য! স্নিগ্ধতায় ভরা নিষ্পাপ একটি ফুল যাকে পছন্দ করে সকলেই আর এই তালিকা থেকে বাদ যান না খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনিও কচিকাচাদের নিয়ে থাকতে বিশেষ পছন্দ করেন। তবে শুভশ্রী পুত্র ইউভান হলো তার অন্যতম পছন্দের এক ছোট্ট খুদে একরত্তি। সম্প্রতি বাংলা শারদীয়া সংখ্যা উদ্বোধনের উপলক্ষে এসে ছোট্ট ইউভানের উদ্দেশ্যে একরাশ প্রশংসামূলক মন্তব্য করলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন টলিনায়িকার একমাত্র পুত্র সম্পর্কে মুখ্যমন্ত্রী জানান,”শুভশ্রীর ছেলেটা খুব স্মার্ট। আমি মাঝে মাঝে ওর ছবি চেয়ে পাঠাই ওর ছবিটা দেখবো বলে।” অন্যদিকে রাজনৈতিক টানাপোড়েনের এই সময়ে অভিনেত্রী নিজের মতামত পোষণ প্রসঙ্গেও এদিন ধুয়ে দেন বিরোধীদের। অগ্নিগর্ভ মুখ্যমন্ত্রী এদিন স্পষ্টতই জানান,”আজকাল দেখছি নিজের মতামত দিলেও সেখানে অন্যান্য কথা বলা হচ্ছে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর কথা বললেও মুশকিল।”

পরবর্তীতে কাচাবাদামখ্যাত ভুবন বাদ্যকারের কথা উল্লেখ করে অভিনেত্রী জানান,”ভুবন তো কাঁচাবাদামের গান গাইলো। মানুষ যদি ওকে সমর্থন না করতো তাহলে কি সেই জায়গায় পৌঁছতে পারতো? চায় পে চর্চা! এই রকম কথাবার্তা হতেই থাকবে।” এখানেই শেষ নয় বিরোধীদের এদিন এক লহাত নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,”বাংলার নামে অপমান করলে অপবাদ দিলে রাগ হয়।

একসময় তো দিল্লি যেতে লজ্জা লাগত। বাংলার নামে খালি অপবাদ। বাইরে থেকে টাকা করে কিছু লোক নিয়ে এসেছে তারা গালাগাল দিচ্ছেন। আমার তবে তাতে কিছু যায় আসে না। আমরা প্রতিহিংসাপরায়ণ নই। তাই 34 বছরের জন্য সিপিএমের কাউকে গ্রেপ্তার করিনি। আপনারা তরজা করেছেন। বাংলা আরো উন্নতি করবে। উন্নয়নই আমাদের কাজ।”

তবে বর্তমানে অনুব্রত ও তার কন্যা,পার্থ,অর্পিতা প্রমুখদের নানান কর্মকান্ডের জন্য তৃণমূল পার্টিরল রয়েছে রাজনৈতিক ভাবে কোণঠাসা হয়ে তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় খোদ কিন্তু দমে যাওয়ার পার্টি নন। তিনি একা হাতেই রাশ টেনে ধরেছেন দলের। এমন রাজনৈতিক টানাপোড়েনের অবস্থাতেও রাজ্যের বেকারদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়ে তিনি জানান,”চা-বিস্কুট,ঘুগনি,তেলেভাজার ব্যবসা করুন পুজো আসছে। দিয়ে কুলোতে পারবেন না। খেটে খেতে হবে শরীরকে যা সোয়াবে তাই সবে। শরীরের নাম মহাশয়।”