নিউজ

পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে বড়সড় গ্রহাণু! বিপদের আশঙ্কা কতটা, স্পষ্ট জানাল নাসা

গত শুক্রবার প্রথমবার এই গ্রহাণুটি যে আসছে তার কথা প্রকাশ্যে আনে আরিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাটালিনা স্কাই সার্ভে।

ফের পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে বিশাল গ্রহাণু। নাসা জানিয়েছে, আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার পৃথিবী থেকে মাত্র ২২ হাজার মাইল অর্থাৎ ৩৬,০০০ কিলোমিটার দূর দিয়ে চলে যাবে ওই বড়সড় গ্রহাণু। জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, গ্রহাণুটি ১৫ থেকে ৩০ ফুট চওড়া। তবে স্বস্তির বার্তা যে আকারে এত বড় হওয়া সত্বেও এটি পৃথিবীর কোনো ক্ষতি করতে পারবে না। ওই বিশালাকার গ্রহাণুর নাম ২০২০ এসডবলিউ।

নাসার বিজ্ঞানীরা বলেছেন, গ্রহাণুটির সঙ্গে পৃথিবীর ধাক্কা লাগার কোনও সম্ভাবনা নেই। আর পৃথিবীর দিকে এলেও ভয়ের কিছু নেই, কারণ সেটি বায়ুমণ্ডলের সংস্পর্শে এসে ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যেত। এছাড়া নাসার বিজ্ঞানীরা এটাও জানিয়েছেন যে প্রতি বছরই বহুবার পৃথিবীর পরিমণ্ডলে চলে আসে এই ধরণের গ্রহাণুগুলি। আর এই গ্রহাণুগুলি আসার ফলেই প্রতি এক থেকে দু’বছর অন্তর বায়ুমণ্ডলের কিছু পরিবর্তন ঘটে থাকে।

গত শুক্রবার প্রথমবার এই গ্রহাণুটি যে আসছে তার কথা প্রকাশ্যে আনে আরিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাটালিনা স্কাই সার্ভে। এর আগে এই ধরনের গ্রহাণু বহুবার পৃথিবীতে আছড়‌ে পড়েছে এবং পৃথিবীর বিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। বিজ্ঞানীরা পরিষ্কারভাবে জানিয়েছেন, সাধারণত এই ধরনের গ্রহাণুর সঙ্গে পৃথিবীর সংঘর্ষের সম্ভাবনা কমই থাকে। তবে মাঝে মধ্যে অন্য গ্রহের সঙ্গে মহাকর্ষীয় টানের কারণে এগুলি আচমকাই অনেকটা কাছে চলে আসে।

আবার অনেক সময় গ্রহাণুর মতো ছোট মহাজাগতিক বস্তু সূর্যের আলো শুষে উত্তপ্ত হয়ে তাপ নির্গত করে। এই কারণের ফলে তাদের গতিবিধিতে অনেক পরিবর্তন লক্ষ করা যায়। একে ‘ইয়ার্কোভস্কি এফেক্ট’ বলা হয়। তবে এই গ্রহাণুর ফলে পৃথিবীর কোনো ক্ষতি হবে না বলে আশ্বস্ত করেছেন বিজ্ঞানীরা।

Tags

Related Articles

Close