দেশনিউজ

‘দাড়ি কামান’, মোদীকে ১০০ টাকা পাঠালেন এক চাওয়ালা, সঙ্গে লিখলেন একটা চিঠি

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দাড়ি কাটতে ১০০ টাকা পাঠালেন (sent 100 rupees to the Prime Minister to cut his beard) মুম্বাইয়ের এক চা বিক্রেতা (Tea seller)। মুম্বাইয়ের স্থানীয় এক মিডিয়াতে খবরটি প্রকাশিত হতেই রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে। তবে কেন এই কাজ করলেন ওই চা বিক্রেতা? জানা গিয়েছে অনীল মোরে (Anil More) নামের ওই ব্যক্তি বর্তমান দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি দেখে রীতিমতন ক্ষুব্ধ। আর সেই কারণেই এই পদক্ষেপ নিয়েছেন অনীল।

মুম্বাইয়ের ইন্দুপুর রোডের একটি বেসরকারি হাসপাতালে উল্টোদিকে চায়ের স্টল চালান অনীল। তার বক্তব্য দেশে করোনার জেরে অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকরা ব্যাপকভাবে ক্ষতির মুখে পড়েছে। নিজের ব্যবসার ক্ষতির পাশাপাশি নিজের বন্ধু-বান্ধব এবং পরিচিতদের কাজ হারাতে দেখেছেন অনীল। আর তার প্রভাবেই প্রধানমন্ত্রীর ওপর হতাশ হয়ে পড়েছেন ওই চা বিক্রেতা, অনীল বলেন প্রধানমন্ত্রী নিজের দাঁড়িই বাড়িয়েছেন কিন্তু দেশের অর্থনীতি বাড়াতে পারেননি। যেখানে আদতে তার সেই দিকেই নজর দেওয়া উচিত ছিল।

দেশের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নিয়েও আক্ষেপ প্রকাশ করেন অনীল, তিনি বলেন করোনার দুটি ঢেউ যেইভাবে দেশের মানুষকে বিপর্যস্ত করেছে সেখান থেকে বেরিয়ে আসার উপায় ভাবা উচিত ছিল প্রধানমন্ত্রীর, দেশের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোতে উন্নতি আনা এবং টিকাকরণের গতি বাড়ানোর দিকে নজর দেওয়া উচিত ছিল তার, তবে সেসব কিছুই করেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। আর সেই কারণেই প্রধানমন্ত্রীকে ১০০ টাকা পাঠিয়ে দাড়ি কামানোর উপদেশ দিয়েছেন ওই চা বিক্রেতা।

অনীল আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে সে যথেষ্ট সম্মান করে তবে দেশের বাস্তব পরিস্থিতিটা বুঝতে পেরেছে সে, আর তাই এই বিষয়গুলিকে প্রধানমন্ত্রী নজরে আনার জন্য তাকে ১০০ টাকা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন অনীল। তবে অনীল বলেন প্রধানমন্ত্রীকে কোনরকম অসম্মান করতে চাননি তিনি। প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া চিঠিতে অনীল দাবি রেখেছেন, যে সমস্ত পরিবার করোনার কারণে আপনজন হারিয়েছে তাদেরকে ৫ লক্ষ টাকা, এবং যে সমস্ত পরিবার লকডাউন এর কারণে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছে তাদের ৩ লক্ষ টাকা করে কেন্দ্রের তরফ থেকে আর্থিক সাহায্য করা উচিত।

Tags

Related Articles

Close