দেশনিউজ

ব্রেকিং, ১০ কোটি পরিবারের কাছে পৌঁছবে নরেন্দ্র মোদির লেখা বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ চিঠি

আজ কেন্দ্রীয় ক্ষমতায় আসার দ্বিতীয় দফার প্রথম বর্ষপূর্তির উদযাপনে মেতেছে বিজেপি। যদিও পুরো ব্যাপারটাই পালিত হবে অনলাইনে। যারা কেন্দ্র ও রাজ্য স্তরের শীর্ষ নেতৃত্বাধীনে আছেন তারা যোগ দিয়েছেন এই কনফারেন্সে। ভার্চুয়াল মিটিং থেকে শুরু করে ভার্চুয়াল মিছিল, সবটাই হয়েছে অনলাইনে,‌ এমনটাই জানানো হয়েছে গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে। বর্ষপূর্তি উদযাপনের জন্য মোট ৭৫০টি ভার্চুয়াল মিছিল পড়েছে বিজেপি।

এছাড়াও আয়োজন করা হয়েছে ১ হাজার টি ভার্চুয়াল কনফারেন্সের। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পক্ষ থেকে মোদীর হাতে লেখা চিঠি দেশের ১০ কোটি পরিবারের কাছে পৌঁছে দেবে বিজেপি কর্মীরা। জানা গিয়েছে, চিঠির বিষয়বস্তু থাকবে আত্মনির্ভরতা। অর্থাৎ দেশের মানুষকে আত্মনির্ভর হয়ে ওঠার বার্তা দিয়ে লেখা হবে চিঠি। এছাড়া করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে কিভাবে মোকাবিলা করতে হবে, সে সম্পর্কেও বার্তা দেওয়া হয়েছে চিঠির মধ্যে। চিঠিতে সরকারের পাশে থেকে সাহায্য করার আবেদনও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। গত ১২ই মে আত্মনির্ভর ভারতের ডাক দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানে প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে ছিলেন দেশের সম্পদের, লোকবলের এবং তাদের ক্ষমতার কথা। দেশের অর্থনীতির ক্ষমতা রয়েছে জেগে ওঠার, এমনটাই বলে আশ্বাস দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

সেদিন প্রধানমন্ত্রী আরও বলেছিলেন, এদেশের যুবশক্তি গোটা বিশ্বকে চালনা করার ক্ষমতা রাখে। আগামী ২১ শতকের ভারত বিশ্বকে পথ দেখাবে। ভারতের কাছে রয়েছে ৫ টি মূল স্তম্ভ, যথা- ১. অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর ক্ষমতা, ২. পরিকাঠামো, ৩. প্রযুক্তি নির্ভর ব্যবস্থা, ৪. জনঘনত্ব বা জনসংখ্যার বিশালতা এবং ৫. বুদ্ধিমত্তা। এই ৫ টি স্তম্ভ দেশের মানুষকে আত্মনির্ভর করে তুলতে সাহায্য করবে। চিঠিতে এমনটাও বার্তা দেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন বিজেপির প্রচারের মূল লক্ষ্য ছিল কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার ও তিন তালাক আইন বাতিল ঘোষণা করার মত বিষয়গুলি। আজকের বর্ষপূর্তি উদযাপনে মোদীকে বিশ্বের সর্বাধিক জনপ্রিয় নেতা হিসেবে ব্যাখ্যা করে বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রথম বছরে কেন্দ্র সরকার তার দেওয়া প্রতিশ্রুতির প্রায় সবটাই পালন করতে পেরেছে। আগামী দিনেও এই পথ অবলম্বন অবলম্বন করে যাবে বিজেপি সরকার এমনটাই আশা করা হয়েছে। ‌