আন্তর্জাতিকনিউজ

করোনার ওষুধ তৈরি হচ্ছে এইসব মানুষের রক্ত দিয়ে! যা জানালো তাকেদা ফার্মেসিউটিক্যাল

দেবপ্রিয়া সরকার: করোনার ওষুধ তৈরিতে নতুন দিশা পেল তাকেদা ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি। তাদের ঔষুধে গুরুতর করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীও অসুস্থ হয়ে উঠবে বলে দাবি তাকেদার। আগামী ৯ থেকে ১৮ মাসের মধ্যে সেই ওষুধ বাজারে আসতে চলেছে। বুধবার আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে তাকেদা ফার্মেসিউটিক্যাল কম্পানি।

এই ভাইরাসের ওষুধ তৈরিতে রক্তরস ভিত্তিক থেরাপির সাহায্য নিচ্ছে তাকেদা। এ পদ্ধতিতে করোনা আক্রান্ত রোগীর দেহে অ্যান্টিবডি সঞ্চালন করা হবে। বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যে ৩০০০ ছাড়িয়েছে ও আক্রান্ত কমপক্ষে ৯০,০০০ হাজার ব্যক্তি। এই রোগের চিকিৎসার ওষুধ তৈরির কাজে তাকেদা ছাড়াও একাধিক ফার্মেসিউটিক্যাল কোম্পানি ময়দানে নেমেছে। ‌এর আগে বিভিন্ন কঠিন রোগের ক্ষেত্রে প্লাজমা বা রক্তরস ভিত্তিক থেরাপি ব্যবহার করা হয়েছে।

এবারও সেই থেরাপিকেই কাজে লাগিয়ে নতুন ওষুধ তৈরি করছে তাকেদা। তবে করে না ওষুধ তৈরির একটি উল্লেখযোগ্য দিক হলো করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীদের শরীর থেকে অ্যান্টিবডি সংগ্রহ করবেন গবেষকরা এবং সেটিকে কাজে লাগিয়ে তৈরি হবে সেই ওষুধ। এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করাতে তাকেদা জানিয়েছে যে, ‘সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর শরীরের অ্যান্টিবডি নতুন আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে সঞ্চালন ঘটালে সেই সংক্রমণ রোধে তাঁর শরীরের প্রতীরোধ ব্যবস্থা সক্রিয় হয়ে উঠতে পারে। এভাবেই আক্রান্ত ব্যক্তির দ্রুত সেরে ওঠার সম্ভাবনা প্রবল।’

Related Articles