নিউজরাজ্যলাইফস্টাইল

আজ ২২শে মার্চ, দেশজুড়ে জারি জনতা কার্ফু! কেমন চলছে পরিবহন ব্যাবস্থা? দেখেনিন

দেবপ্রিয়া সরকার : বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের আতঙ্কের তটস্থ বিশ্ববাসী। এই ভাইরাস মোকাবিলায় তৎপর হয়ে উঠেছে কেন্দ্র। এমন একটি সময় এক চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি। আজ ২২ মার্চ রবিবার সকাল ৭ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত দেশজুড়ে কার্ফু জারি করেছে মোদি। অর্থাৎ এই দিন নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বাড়ি থেকে না বেরোনোর পরামর্শ দিয়েছেন মোদি সরকার। আজ জনপরিবহন ব্যবস্থা কি থাকবে তা নিয়ে প্রশ্ন অনেকের মধ্যে। জরুরী কালীন অবস্থায় জনপরিবহন ব্যবস্থা থাকবে কিনা তা জানতে চাইছে সাধারণ মানুষ।

এই প্রশ্নত্তরে জানা গিয়েছে অন্যান্য দিনের তুলনায় কিছুটা কম থাকবে জনপরিবহণ ব্যবস্থা। অন্যান্য দিনের তুলনায় কম চলবে বাস-ট্রাম। তবে খুব বেশি পার্থক্য করা যাবে না। কিন্তু কমানো হয়েছে মেট্রোর সংখ্যাও। ৩০ মিনিট অন্তর চলবে মেট্রো। বাতিল করা হয়েছে প্রচুর দূরপাল্লার এক্সপ্রেস ও প্যাসেঞ্জার ট্রেন। মেট্রো পরিষেবা দিল্লিতে বাতিল করা হলেও কলকাতায় সদ্য চালিত ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো পরিষেবা প্রায় একই থাকবে। দিন রাস্তায় জীবাণুনাশক স্প্রে করা হবে। এছাড়া পাবলিক ট্রান্সপোর্ট অর্থাৎ বাস ট্রাম, মেট্রো ও রেলেও স্প্রে করা হবে জীবাণুনাশক।

জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেটের তরফে তপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আমাদের সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে, ৪০ হাজার বাস। তাই বাস চলাটা আমরা বাসমালিক, কনডাক্টর, চালকের উপরে বিষয়টি ছেড়ে দিচ্ছি।” হলুদ ট্যাক্সি রাস্তায় কম নামার সম্ভাবনা রয়েছে। বেসরকারি অ্যাপ ক্যাব সংস্থাগুলির তরফে জানানো হয়েছে, তাদের ক্যাব পরিষেবা বন্ধ থাকলেও সমগ্র পরিষেবা বন্ধ থাকছে না। পাবলিক ট্রান্সপোর্ট স্বাভাবিক না থাকলেও দেশের মধ্যে বিমান পরিষেবা স্বাভাবিক থাকবে। তবে, আন্তর্জাতিক বিমান দমদমে ওঠানামার বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক্ষেত্রে তিনি বলেন, “রাজ্য এই বিষয়টি দেখে না। আন্তর্জাতিক বিমান চলার বিষয়টি দিল্লির হাতে রয়েছে। পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে আন্তর্জাতিক‌ বিমান চলাচল স্থগিত রাখা উচিত।’’ এই বিষয়টিতে আলোকপাত করেছে কেন্দ্র সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ২২ মার্চের পর কোনও আন্তর্জাতিক বিমান কলকাতায় নামবে না।