লাইফস্টাইল

রাতারাতি ফিরবে ভালো সময়, ঘরের এই কোণে ঝোলান দেওয়াল ঘড়ি

চেষ্টা তো আমরা সবাই করি কিন্তু তারপরেও যেন কোথাও গিয়ে যেন খামতি থেকে যায়। কঠোর পরিশ্রম করার পরেও অনেকসময় সুখ শান্তি ও সাফল্য লাভের পথে বাধা থেকে যায়। কিন্তু তার একমাত্র কারণ আপনার কম পরিশ্রম নয় বরং বাস্তুশাস্ত্রও বটে। পরিশ্রমের সাথে রয়েছে সঠিক বাস্তুশাস্ত্র যার ওপর নির্ভর করেই পজেটিভ শক্তি আমাদের চারপাশে বিরাজ করে। আর বাস্তশাস্ত্র নির্ভর করে ঘরের বিভিন্ন বস্তুর ওপর।

বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে ঘরে রাখা জিনিসগুলি মানুষের ভাগ্য নির্ধারণে ভূমিকা পালন করে। প্রত্যেকটি বস্তুর নিজস্ব সঠিক অবস্থান আছে যদি বাস্তু মেনে সেগুলিকে সঠিক স্থানে রাখা হয় তাহলে তা সুখ ও সমৃদ্ধি নিয়ে আসে। যেমষ ঘড়ির কথায় বলা যাক, সকলের বাড়িতে ঘড়ি তো রয়েছে। সময় দেখার জন্য সকলেই ঘড়ি ব্যবহার করছেন কিন্তু জানেন কি বাস্তুবিদরা বলছেন ঘড়ি শুধু সময় দেখায় না ভাগ‍্য নির্ধারণও করে। তাই অবশ্যই বাড়িতে ঘড়ি রাখার আগে বিশেষ কিছু বিষয় মাথায় রাখা উচিত।

বাস্তুশাস্ত্রে ঘরে দেওয়াল ঘড়ি রাখা সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম বলা হয়েছে চলুন দেখে নিন সেগুলি-

প্রথম দরজায় ঘড়ি না- অনেকে সদর দরজায় একটি ঘড়ি রাখে কিন্তু বাস্তুমতে এই স্থানে ঘড়ি রাখা একদম উচিত নয়। বাড়ির প্রবেশপথে ঘড়ি থাকলে তা পারিবারিক অশান্তি তৈরী করে।

এছাড়াও যেগুলো মনে রাখবেন-

বাড়ির উত্তর, পূর্ব, পশ্চিম দিকে ঘড়ি রাখা ভালো।

দক্ষিণ দিকে ঘড়ি রাখা অশুভ, মনে করা হয় এটি অর্থনৈতিক সমস্যা ডেকে আনে।

বাস্তুমতে গোল ঘড়ি সব থেকে বেশি উপকারী।

তবে কখনোই বন্ধ ঘড়ি বাড়াতে রাখবেন না। আর যেই ঘড়ির কাচ ভেঙে গেছে তাতে সময় দেখবেন না।