লাইফস্টাইল

Health Tips: শরীর সুস্থ রাখতে ম্যাজিকের মতো কাজ করে তুলসি পাতা, রইল মহা ঔষধি তুলসির অজানা উপকারিতা

হিন্দু বাড়িতে তুলসী গাছকে (Holy basil) ভগবানের ন্যায় পুজো করা হয়। বর্তমানে ফ্লাট বাড়ির যুগে তুলসী মঞ্চ বাড়ির উঠোনে তুলসীতলা দেখা না গেলেও একটা সময় ছিল যখন ঠাকুরমা দিদিমারা সন্ধ্যা হলেই তুলসী মঞ্চে জ্বালাতেন প্রদীপ, ধুপ ধুনো। তবে আগেকার দিনের মতন এখন তুলসী গাছ পুজো না করা হলেও, তুলসীর ভেষজ গুণ জানতে বাকি নেই কারোর। যুগ-যুগান্ত ধরে তুলসীকে বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধের ওষুধ হিসাবে ব্যবহার করে আসছে মানুষ। একটা সময় ডাক্তারের বদলে মুনিঋষি বদ্যি কবিরাজরা আমাদের চিকিৎসা করতেন, সেই সময়ে বিভিন্ন ভেষজ পাতা দ্বারাই চলত আমাদের চিকিৎসা, তবে আজকের দিনে সেসব আর দেখা যায়না। এখনকার দিনে প্রযুক্তির সাথে সাথে বিভিন্ন কেমিক্যাল দ্বারা প্রস্তুত ওষুধ বের হয়ে গিয়েছে আমাদের রোগ নির্মূলের জন্য তবে সেই সব ভেষজ পাতার গুণ কিন্তু একই রয়ে গিয়েছে আর তেমনই একটি পাতা হল তুলসী।

শরীরের কোন কোন রোগের ক্ষেত্রে তুলসী হয়ে উঠতে পারে অব্যর্থ ওষুধ আসুন জেনে নেওয়া যাক:-

শ্বাস কষ্ট জনিত রোগ : সর্দি কাশি ঠান্ডা লাগার ক্ষেত্রে তুলসীর গুণাবলী অনস্বীকার্য। গলার যেকোনো রোগের ক্ষেত্রে তুলসী ম্যাজিকের মতন কাজ করে থাকে।

হার্টের রোগ : তুলসী হার্টের অসুখের (heart disease) যেকোনো সমস্যা দূর করার ক্ষেত্রে সহায়ক কারণ তুলসী পাতায় আছে ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা বাড়ায় হার্টের কর্মক্ষমতা হার্টকে সুস্থ রাখে এবং হার্টের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে।

মানসিক চাপ: তুলসীতে ভিটামিন সি (vitamin c) এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট (antioxidant) থাকার কারণে তা মানসিক চাপের উপশম ঘটায়। নার্ভকে শান্ত করে। এছাড়াও তুলসী পাতা সেবনে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আসে। এ কারণে হাই ব্লাড প্রেসারের রোগীদের ক্ষেত্রে তুলসী একটি মহা ঔষধি।

ব্যথা : তুলসীর বিশেষ উপাদান মাংসপেশিগুলোর খিচুনি রোধ করতে সাহায্য করে, যার ফলে মাথাব্যথা শরীর ব্যথা উপশম ঘটে।

রোগ প্রতিরোধক: তুলসী একটি দারুণ নার্ভের টনিক, এছাড়াও তুলসী খেলে বাড়ে স্মৃতিশক্তি। কিডনি এবং পাকস্থলীর তুলসী বেশ একটি ভেষজ ওষুধ। এছাড়া শ্বাসনালী থেকে শ্লেষ্মাঘটিত সমস্যা দূর করে তুলসী।

বার্ধক্যজনিত রোগ: আপনি যদি নিজের যৌবন ধরে রাখতে চান তবে তুলসী পাতা আপনার জন্য একটি ম্যাজিক ঔষধি। তুলসী পাতার মধ্যে আছে ভিটামিন সি, ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস (phytonutrients) ও এসেন্সিয়াল অয়েলগুলো (essential oil) যা দারুন অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের কাজ করে যার ফলে বয়স জনিত সমস্যা গুলি কমে।

ত্বকের সমস্যা : তুলসীর হাজারো গুণ, এমনকি ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতেও তুলসী অব্যর্থ। ত্বক সুন্দর এবং মসৃণ করতে তুলসী পাতা বেটে মুখে লাগানো যায়। তিল তেলের সাথে যদি তুলসীর রস মিশিয়ে হালকা গরম করে সেটি মুখে লাগান তবে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে মসৃণ ও উজ্জ্বল। এছাড়া যদি কোথাও পুড়ে যায় তবে নারকেল তেলের সাথে তুলসীর রস ফেটিয়ে সেটি সেই স্থানে লাগালে জ্বালা এবং পড়া দাগ দুই থেকেই মুক্তি পাওয়া যায়।

পোকা কামড়ালে : প্রোফাইল্যাক্টিভ গুণ রয়েছে তুলসী পাতায় তাই যদি কোন স্থানে পোকামাকর কামড়ায় তবে সেই স্থানে তুলসী পাতার রস লাগিয়ে দিলে পোকা কামড়ের জ্বালা এবং ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

Tags

Related Articles

Close