×
Jannah Theme License is not validated, Go to the theme options page to validate the license, You need a single license for each domain name.

পুজোর বাসি ফুল ফেলে না দিয়ে, এভাবে কাজে লাগান

বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ। এই তেরো পার্বণ এর মধ্যে লেগেই আছে বিভিন্ন ধরনের পুজো আর পুজো মানেই নানা ধরনের অনেক পূজার ফুল। আর পূজো শেষ হয়ে গেলেই সেই ফুলগুলিকে আমরা ফেলে দিই আবর্জনা হিসেবে। তবে এত ফুল ফেলে না দিয়ে এইগুলিকে আমরা পুনর্ব্যবহার করতে পারি নানাভাবে। আজকের প্রতিবেদন তাই নিয়েই। আজকে আপনাদের জানাব কিভাবে এই বাসী ফুল ফেলে না দিয়ে পুনর্ব্যবহার করতে পারবেন। যাতে পরিবেশ থাকবে সুস্থ এবং আপনিও বানিয়ে নিতে পারবেন আপনার ব্যবহারযোগ্য জিনিস।

জামা কাপড় রং করতে- এরজন্য আপনার কাছে থাকতে হবে কিছু হালকা রঙের যেমন সাদা গোলাপি বা হালকা আকাশি বর্ণের কোন জামা। আর এই জামা গুলিকে অন্য রঙে সাজিয়ে তুলতে পারবেন বাসী ফুলের সাহায্যে খুব সহজেই। আর তার জন্য আপনাকে বাসী ফুলগুলিকে একটি জলের পাত্রে কিছুক্ষণের জন্য ডুবিয়ে রাখতে হবে। আর তারপর আপনার জামাটিকে সেই জলের মধ্যে ডুবিয়ে দিন। কিছুক্ষণ পর দেখবেন আপনার জামার রঙ পরিবর্তন হয়ে গেছে।

ফ্লোর ক্লিনার- আমরা নিয়মিত ঘর পরিষ্কার করার জন্য বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফ্লোর ক্লিনার ব্যবহার করে থাকি। তবে এইবার বাসী ফুল দিয়ে আপনি আপনার ঘরেই বানিয়ে ফেলতে পারবেন প্রাকৃতিক উপায়ে ফ্লোর ক্লিনার। তার জন্য আপনাকে গরম জলের মধ্যে সামান্য বেকিং সোডা ও বাসী ফুলগুলি দিয়ে ভিজিয়ে রাখতে হবে। তারপর এই জল দিয়ে আপনি আপনার ফ্লোর পরিষ্কার করতে পারবেন। এটি ঘর পরিষ্কার করার সঙ্গে সঙ্গে সুগন্ধও ছড়াবে।

এসেন্সিয়াল অয়েল- বর্তমানে এসেন্সিয়াল অয়েল এর চাহিদা বাড়ছে। বাজারচলতি বিভিন্ন ব্যান্ডের এসেন্সিয়াল অয়েল আমরা ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু বাজারচলতি অনেক এসেন্সিয়াল অয়েলের মধ্যে নানা ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় কিন্তু ফুল দিয়ে আপনি খুব সহজেই বাড়িতে তৈরি করে ফেলতে পারবেন এসেন্সিয়াল অয়েল। তার জন্য আপনাকে একটি পাত্রে নারকেল তেল গরম করে তার মধ্যে ফুল দিয়ে ফুটিয়ে নিতে হবে। তারপর সেটি ঠান্ডা করে ছেঁকে নিয়ে আপনার ত্বকে ব্যবহার করতে পারবেন। ঘরোয়া উপায়ে তৈরি এই এসেন্সিয়াল অয়েলটি আপনার ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে।

বি.দ্র- তবে মনে রাখবেন উপরিউক্ত কোনো উপাদানে যদি আপনার অ্যালার্জি থেকে থাকে তবে সেটি থেকে বিরত থাকুন এবং সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।