লাইফস্টাইল

এই নিয়মে পূজা করলে তুষ্ট হবেন মহাদেব, খুলবে সৌভাগ্যের দরজা

দেবের দেব মহাদেব। এমন মহাশক্তিধর অথচ অল্পে তুষ্ট দেবতা হিন্দু দেবমন্ডলীতে বিরল। একদিকে যেমন তার রুদ্র মূর্তিতে প্রলয় রূপ দেখা যায় অপরদিকে সামান্য ফুল বেল পাতাতে তিনি তুষ্ট হন‌। ভক্তদের সমস্ত মানসকামনা পূর্ণ করেন।

আর সোমবার হলো মহাদেবের দিন, এই দিনটাকে মহাদেবের আরাধনার এক বিশেষ দিন হিসেবে মনে করা হয়। শাস্ত্রমতে শিবের আরাধনা যদি টানা ষোলটি সোমবারে করা যায় তাহলে সমস্ত রকম মনস্কামনা পূরন হওয়া সম্ভব। পুরাণ অনুসারে শিবের স্ত্রী পার্বতী এই ব্রত পালন করেছিলেন, জেনে নিন কীভাবে করবেন এই ব্রত।

মনে করা হয় শ্রাবণ মাসের সোমবার এর বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। পন্ডিতদের মতে শ্রাবণ মাসে শিবের পুজো করলে পুণ্য লাভ হয়। তাই শ্রাবণ মাসের সোমবার গুলোতে যেভাবে পূজা করা হয় সেটাই ষোলো সোমবার ব্রত শুরু করার সঠিক সময়। শ্রাবণ মাসের সোমবার থেকে শুরু করে টানা 16 সপ্তাহ এই ব্রত পালন করতে পারলে তবে মিলবে পুন্যফল।

বাড়ির ঠাকুর ঘরের শিবের মূর্তি বা ছবিতে পূজা অর্চনা করতে পারেন। প্রথমে স্নান করে শুদ্ধমনে এই ব্রত পালনের জন্য বসতে হবে। সাদা পোশাক পরিধান করে সোমবারের ব্রত কথা পাঠ করতে হবে পাশাপাশি পুজোর সময়কালে ওম নমঃ শিবায় মন্ত্র টি উচ্চারণ করুন।

শিবের আরাধনা উপকরণ খুবই সাধারণ। বেলপাতা, চাল, ফুল, ধূপ, প্রদীপ, চন্দন, ধুতরো, দুধ, কপূর সহযোগে একাগ্রচিত্তে আরাধনা করতে হবে মহাদেবের। উল্লেখ্য যে আপনার পুজোর ঘরের মুখ উত্তর পূর্বদিকে ও ঠাকুরের মূর্তিটি উত্তরমুখে থাকে। যেদিন এই ব্রত পালন করবেন সেদিন আপনাকে উপোস থাকতে হবে। সন্ধ্যেবেলা ফের শিবের মাথায় জল ঢেলে তবেই নুনবিহীন খাদ্য গ্রহণ করবেন। প্রচলিত বিশ্বাস ও শাস্ত্র অনুযায়ী এই ব্রত পালন করলে মহাদেবের আশীর্বাদে জীবনে আর্থিক শারীরিক-মানসিক যাবতীয় সমস্যা দূর হয়। জীবনের মনস্কামনা পূর্ণ হয়।

Tags

Related Articles

Close