×
Jannah Theme License is not validated, Go to the theme options page to validate the license, You need a single license for each domain name.

দেখুন বিদ্যুৎ বিল কমানোর ঘরোয়া কিছু সহজ টিপস

বর্তমান সময়ে বিদ্যুৎ ছাড়া দৈনন্দিন জীবন যেন একেবারে অচল হয়ে পড়ে। মানুষ যত উন্নত হচ্ছে বিদ্যুতের ব্যবহার ততই বেড়ে চলেছে। তবে একাধিক সরঞ্জাম ব্যবহার করার ফলে বিদ্যুতের বিল অনেক বাড়িতেই বেশি আসে। আজ আমরা আপনাদের এমন কিছু পদ্ধতি সম্পর্কে বলবো যার মাধ্যমে বিদ্যুতের বিল কমানো সম্ভব। সাধারণ এই নিয়মগুলো মেনে চললে খুব কম বিদ্যুতের বিল আসবে।

লোডশেডিংয়ের সময় বন্ধ রাখতে হবে সমস্ত সরঞ্জামের সুইচ। এছাড়া প্লাগও খুলে রাখতে হবে। কারণ, বিদ্যুৎ চলে এলে এক ঝটকায় অনেকটাই বিল বেড়ে যেতে পারে।

ফ্রিজের দরজা বারবার খুললে বিল বেড়ে যায়। ফ্রিজের নীচে বা পিছনে যে কনডেন্সেরের কয়েলটি রয়েছে সেটাকে নিয়মিত পরিষ্কার করা উচিত। কারণ, এতে নোংরা জমলে ২৫ শতাংশ বেশি বিল আসে। এছাড়া ফ্রিজের গায়ে রোদ লাগলেও বেশি বিদ্যুৎ খরচ হয়।

দশ বছর অন্তর অন্তর ঘরের ওয়ারিং বদলানো প্রয়োজন। একইসাথে ওয়ারিং করার সময় উন্নত মানের তার ব্যবহার করলে বিদ্যুৎ খরচ কমে। ঘরের বাল্ব অথবা টিউবলাইট নিয়মিত পরিষ্কার রাখতে হবে। এছাড়া টিউবের পরিবর্তে সিএফএল লাইট ব্যবহার করা উচিত।

টিভি বা কম্পিউটারকে স্ট্যান্ডবাই মোডে রাখা উচিত নয়। এতে ৯০ শতাংশ বেশি বিদ্যুৎ খরচ হয়। যদি এগুলো ব্যবহার না করা হয় একেবারে বন্ধ করে দেওয়া উচিত।

বর্ষাকালে ওয়াশিং মেশিনে জামাকাপড় কাচার পর শুকানোর জন্য ড্রায়ার ব্যবহার করা হয়। তবে বর্ষাকাল ছাড়া অন্য সময় ড্রায়ারের ব্যবহার না করাই ভালো। এসির তাপমাত্রা ২৪-২৬° মধ্যে রাখা উচিত। একইসাথে বাড়ি থেকে বেরোনোর আধঘন্টা আগে বন্ধ রাখতে হবে এসি।

পাঁচ বছর অন্তর অন্তর পাখা, লাইট-সহ অন্যান্য সরঞ্জামগুলি বদলে ফেলা উচিত। সবশেষ এটা বলা যেতে পারে, বাজারে এখন অনেক বিদ্যুৎ সাশ্রয়কারী ফ্রিজ, এসি ইত্যাদি পাওয়া যায়। সেগুলো ব্যবহার করলে বিল অনেকটাই কম আসে।