লাইফস্টাইল

দীর্ঘদিন সুস্থ্য ভাবে বাঁচতে চান? তাহলে দুধ চা নয় পান করুন এই চা!

দিনের শুরুতে এক কাপ চা না হলে দিনটা ঠিক জমে না। সব থেকে ভালো চা উৎপন্ন হয় আমাদের ভারতেই। তাই চায়ের সাথে ভারতের সম্পর্ক বেশ গভীর। চায়ের মধ্যে থাকা উপাদান আমাদের শরীরকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। তবে যেকোনো চা খেলে হবে না। চা খেতে হবে এই পদ্ধতিতে।

গবেষকরা বেশ কিছু গবেষণা করে দেখেছেন এক কাপ গরম জলে হলুদ গুঁড়ো, মধু এবং আদা মিশিয়ে পান করলে শরীরের সমস্ত রকম ভিটামিন ও খনিজ পদার্থের ঘাটতি মেটে। শরীর থাকে রোগমুক্ত এবং চাঙ্গা।
দেখে নিন এই চা পান করলে কি কি উপকার পাওয়া যায়:-

১) দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটে: এই টারমারিক টি চোখের দৃষ্টিশক্তির ক্ষমতা বাড়ায়। হলুদ গুঁড়ো চোখের রেটিনাকে ভালো রাখে।

২) ক্যান্সারের মতো রোগ দূরে থাকে: হলুদে বর্তমান অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান ক্যান্সারের কোষ ধ্বংস করতে সাহায্য করে।

৩) ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে: হলুদ গুঁড়ার মধ্যে থাকা কারকিউমিন উপাদান শরীরের টক্সিনকে বার করে দেয়। এবং শরীরে জমে থাকা মেদ ঝরাতে সক্ষম।

৪) খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়: হলুদ গুঁড়ার মধ্যে থাকা কারকিউমিন রক্তের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। শরীরের খারাপ কোলেস্টেরল কমলে হার্ট থাকে ভালো।

৫) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: হলুদ সমস্ত রোগের জীবাণু ধ্বংস করতে সাহায্য করে। ফলে রোজ হলুদ চা খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

৬) হজমের উন্নতি ঘটে: সারাদিনে নানা রকম খাবারের স্বাদ নিতে নিতে আমাদের হজম ক্ষমতা কমে যায়। হলুদের মধ্যে থাকা উপাদান হজম শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

৭) ত্বককে ভালো রাখে: হলুদ আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী উপাদান। হলুদের অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ত্বকের সমস্ত রকম সমস্যা দূর করে।

৮) স্মৃতি শক্তির উন্নতি ঘটে: হলুদের মধ্যে থাকা একাধিক উপকারী উপাদান স্মৃতিশক্তির ক্ষমতাকে বাড়ায়। এবং বুদ্ধিকেও বাড়িয়ে তোলে।

৯) অ্যালঝাইমার্সের মতো রোগকে দূরে রাখে: হলুদের মধ্যে থাকা একাধিক উপাদান মস্তিষ্কের সমস্ত রোগ দূর করে। ব্রেন সেল এর ড্যামেজ কমাতে সক্ষম।

১০) হার্টের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়: যাদের হার্টের সমস্যা আছে তারা রোজ এই টারমারিক টি খাওয়ার অভ্যাস করুন উপকার পাবেন।

তাই এবার থেকে আর সাধারন চা নয়, রোজ খান টারমারিক টি।

Related Articles