অর্থনীতিনিউজ

ATM-থেকে টাকা তোলার সময় নজর রাখুন সবুজ আলোতে, একটু অসাবধানতায় খালি হতে পারে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট

দেশে সাইবার ক্রাইমের ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়ে উঠেছে অনলাইন লেনদেনের ফ্রড! সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে ব্যাংকের তরফ এটিএম পরিষেবা চালু করা হলেও দিনদিন বাড়ছে এটিএম জালিয়াতির ঘটনা। তাই এটিএম এর মাধ্যমে লেনদেন সহজ হলেও নিত্যদিন অসুবিধার মুখে পড়তে হচ্ছে ব্যবহারকারীদের। অতএব এটিএম ঘটিত যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনার হাত থেকে বাঁচতে আপনাকে নিতে হবে অতিরিক্ত সর্তকতা!

এটিএম ফ্রডের সব থেকে বড় কারন হলো ক্লোনিং! আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কিভাবে আপনি শিকার হতে পারেন এটিএম জালিয়াতির-

1) টাকা তোলার সময় যে স্লটে কার্ডটিকে অনুপ্রবেশ করানো হয় সেই স্লটে হ্যাকাররা একটি বিশেষ ডিভাইস রেখে দেন। যাতে করে গ্রাহকের কার্ড এর সমস্ত ডিটেলস স্ক্যান হয়ে হ্যাকারদের কাছে চলে যায়। এছাড়াও ক্যামেরা দিয়ে পিন নাম্বার ট্র্যাক করে হ্যাকাররা এটিএম জালিয়াতি করে থাকেন। সেই জন্য যখন আপনি আপনার এটিএম এর পিন নম্বরটি ইনসার্ট করাকালীন হাত দিয়ে আড়াল করে রাখা বাঞ্ছনীয়। যাতে তা কোনভাবে সিসিটিভি ক্যামেরার নজরে না আসে।

2) এছাড়াও এটিএম কার্ড স্লটে প্রবেশ করানোর আগে ভালো করে স্লটটিকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখে নিন। যদি আপনার মনে হয় স্লটে টেম্পারিং করা হয়েছে কিংবা স্লটটি ঢিলেঢালা সেক্ষেত্রে কার্ডের অনুপ্রবেশ না করাই ভালো।

3) এটিএম জনিত সর্তকতা অবলম্বনের অপর একটি বিশেষ লক্ষণীয় দিক হলো এটিএম কার্ডের স্লটে অনুপ্রবেশ ঘটনার সময় আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে সবুজ আলো জ্বলছে কিনা। যদি স্লটটিতে কোন রূপ আলো না জ্বলে কিংবা লাল আলো জ্বলে সেক্ষেত্রে আপনার এটিএম কার্ডটিকে ইনসার্ট না করাই বাঞ্ছনীয়।

4) যদি কোনো গ্রাহকের মনে হয়, তিনি এটিএম জালিয়াতির শিকার হয়েছেন এবং সেই সময় ব্যাঙ্কিং পরিষেবাও বন্ধ থাকে তবে সেক্ষেত্রে অতিসত্তর পুলিশের শরণাপন্ন হতে হবে!

Related Articles

Back to top button