×

পুরনো ১০ পয়সার কয়েন বিক্রি করে আয় করুন ১২ লক্ষ টাকা, কিভাবে? জেনে নিন বিস্তারিত

আপনি কি পুরনো টাকা পয়সা সংগ্রহ করতে ভালোবাসেন? পুরনো ১০ ২০ বা ৫০ বিভিন্ন পয়সার দিকে আপনার আগ্রহ প্রবল? তবে আপনার সংগ্রহশালায় অবশ্যই একবার খুঁজে দেখুন এই পয়সাটি আছে কিনা কারণ তাহলে আপনি অচিরেই হয়ে উঠতে পারেন লক্ষপতি। অনেকের কাছে এ কেবল শখ হলেও অনেকেই জানেন না বাজারে পুরনো কয়েনের বিশেষ চাহিদা রয়েছে। বিশেষ করে গত কয়েক বছরে এই কয়েনের দামে বিরাট পরিবর্তন হয়েছে।

আর অতি সম্প্রতি অন্তরাষ্ট্রীয় বাজারে এই মুহূর্তে দশ পয়সার কয়েনের দাম বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে একেবারে হু হু করে। আপনার কাছে যদি এই বিশেষ দশ পয়সা থেকে থাকে খুব সহজেই সেই পয়সা বিক্রি করে পেয়ে যেতে পারেন তিন লক্ষ টাকা।

রতে এই ধরনের কিছু ওয়েবসাইট আছে যারা পুরনো কয়েন ও নোটের ব্যবসা করে। তবে হ্যাঁ এই ধরনের কয়েন নিলামের ক্ষেত্রে বেশ কিছু শর্ত রয়েছে সেগুলি জেনে নিন বিস্তারিত। প্রথমেই জানিয়ে রাখি আপনার এই কয়েনগুলি হতে হবে ১৯৫৭ থেকে ১৯৬৩ সালের মধ্যে জারি করা পুরনো ১০ পয়সার কয়েন।

এই সালের মধ্যে তৈরি হওয়া কয়েনগুলির বিশেষত্ব এই যে এইগুলি তামা ও নিকেল ধাতু দিয়ে তৈরি করা হয়েছিল যার ওজন ন্যূনতম পাঁচ গ্রাম। বোম্বে কলকাতা ও হায়দ্রাবাদে তৈরি হওয়া এই কয়েনগুলির এক ধারে রয়েছে অশোক স্তম্ভ ও লিখিত রয়েছে ‘ভারত’। অন্যদিকে রয়েছে দেব নাগরী হরফে লেখা দশ পয়সা। যদি আপনার সংগ্রহশালায় এমন দুর্লভ কয়েন থেকে থাকে তবেই তা বিক্রি করতে পারবেন।

এরজন‍্য ইবে বা অন‍্যান‍্য ওয়েবসাইটে গিয়ে লগইন করে নিজের ডিটেলস দিয়ে বিক্রেতা হিসাবে নিজেকে রেজিস্টার করতে হবে আর তারপরেই সেই কয়েন বিক্রি করতে পারবেন। দশ পয়সার এই দুর্লভ কয়েন প্রায় তিন লক্ষ মূল‍্য পর্যন্ত বিক্রি হতে পারে।