×
Jannah Theme License is not validated, Go to the theme options page to validate the license, You need a single license for each domain name.

Sona Roder Gaan: ছাদনাতলায় বিক্রমকে সপাটে চড়, বিয়ে ভাঙলেন আনন্দী

শরৎচন্দ্রের সময়কাল থেকে এযাবৎকাল পর্যন্ত পণপ্রথা আমাদের সমাজের এক বিশাল বড় ব্যাধি। যাকে গোড়া থেকে নির্মূল করা হয়ে ওঠেনি আজও। সমাজের হাজারো উন্নতি হলেও এখনো চোখ রাখলেই দেখা যায় দেনা-পাওনার কারণে ঘরে ঘরে চলমান সাংসারিক অশান্তি আর এই দেনাপাওনার কারণেই এবার বিয়ের মন্ডপে দাঁড়িয়েই ঘর ভাঙলো টলিউড অভিনেত্রী পায়েল দের!

আজ্ঞে, বাস্তবে নয় কালার্স বাংলার আপকামিং ধারাবাহিক “সোনা রোদের গান”এ এমনই প্রেক্ষাপটে বিয়ে ভেঙেছে নায়িকা পায়েল দে ওরফে আনন্দির। সম্প্রতি চ্যানেল এর পক্ষ থেকে প্রকাশ্যে আসা একটি নতুন প্রোমো ভিডিওতে বিয়ের মন্ডপে নায়িকা আনন্দীকে বিক্রম ওরফে অভিনেতা সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায় এর সাথে সাত পাক ঘুরতে দেখা যাচ্ছে। সবকিছু ঠিকঠাক চললেও হঠাৎই মাঝেই ঘটে ছন্দপতন। বিয়ের মন্ডপেই হঠাৎ মাথাঘুরে পড়ে যান আনন্দীর বাবা।

পরবর্তীতে, ডাক্তার অনুভব অনন্যা আনন্দীর বাবার পালস চেক করে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করলে শোকোস্তব্ধ আনন্দী তৎক্ষণাৎ বিয়ে ভেঙে দেন বিক্রমের সাথে। কেননা তার স্বর্গগত বাবার ওপর বিয়ের দিন সকাল থেকেই স্বামীর পরিবারের তরফে 80 লাখ টাকার গাড়ি পণ হিসেবে দেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয়েছিল যার কারণে এত ভার সহ্য না করতে পেরে পরলোকগমন করেন আনন্দির বাবা। ম্পূর্ণ ঘটনাটির জন্য যখন আনন্দির ছোটবোন আনন্দিকেই দোষারোপ করতে উঠেপড়ে লাগে ঠিক সেইসময় বিক্রমকে সপাটে গালে চড় মেরে বিয়ের মণ্ডপ থেকে বেরিয়ে আসে আনন্দি।

“তোমার লোভ এর জন্যই আজ আমার বাবা নেই” একথা বলে বিক্রমের প্রতি ভর্ৎসনা জানিয়ে বিয়ে ভেঙে দেওয়ার কারণে নেটিজেনদের একাংশ পড়ে গিয়েছেন বেজায় চিন্তায়! বাঙালি সমাজে একটি মেয়ের বিয়ে ভেঙে যাওয়া হল এক মস্তবড় ব্যাপার। এখন সামনে একটাই প্রশ্ন তবে কি আনন্দির সাথে ডাক্তার অনুভবেরই বিয়ে হতে চলেছে নাকি একজন সামর্থ্য বাঙালি মেয়ে হিসেবে পিতৃহারা পরিবারের দায়িত্ব একা কাঁধে তুলে নিয়ে বাকী জীবন গুজরান করবে আনন্দি? উত্তর পেতে চোখ রাখতে হবে কালার্স বাংলার পর্দায়!