বিনোদন

হৃতিকের এই চরম ভুলের জন্য আজ বলিউডের ‘বাদশা’ শাহরুখ খান! আজও আফসোস করেন অভিনেতা

বয়স যে কেবল একটা সংখ্যা তা বলিউডের গ্রিড গডকে দেখলেই বোঝা যায়। বয়স প্রায় ৫০ ছুঁই ছুঁই কিন্তু আজও তরুণীদের মনে বাস তার। সেই রোগা পাতলা ছেলেটাই বর্তমানের হ‍্যান্ডসাম হাঙ্ক। বলা হচ্ছে হৃতিক রোশনের কথা। “কহনা পেয়ার হে” মুক্তির পর থেকেই যিনি রাতারাতি তারকা হয়ে উঠেছিলেন। একের পর এক ছবি দিয়ে হয়ে উঠেছেন স্টার। এমন একটা সময় ছিল যখন তিন খানের রাজত্বেও থাবা বসিয়েছিলেন।

কিন্তু সেই দিন যেন আজ অতীত! তার জনপ্রিয়তা তাকে সুপারস্টার করে তুলতেই পারতো কিন্তু নিজের এই ভুলের জন্যই যা অধরা থেকে গেল! বিগত দু দশকে খুব বেছে বেছে ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। ফি বছরেও বড় পর্দায় তার দেখা মিলেছে মাত্র দুবার। আর এই বেছে বেছে ছবি করার মানসিকতা থেকেই সুপারস্টার তকমা থেকে অধরা তিনি আর তারই প্রত‍্যাখান করা ছবি থেকে লাভবান হয়েছেন বহু তারকা।

চলুন সেই ছবির তালিকায় দেখে নেওয়া যাক-

লগান- ২০০১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবি বলিউডের এক মাইলস্টোন। এক গ্রামের বাসিন্দাদের ক্রিকেটের মাধ্যমে ব্রিটিশের বিরুদ্ধে লড়ায়ের কাহিনী তুলে ধরা হয়েছিল ছবিতে যেখানে দুর্দান্ত অভিনয় করে মন কেড়েছিলেন আমির খান। তবে জানেন কি এই ছবির জন্য প্রথম প্রস্তাব গিয়েছিল হৃত্বিক রোশনের কাছেই। তবে তিনি ছবির চিত্রনাট্য পড়ে তেমন ভরসা পাননি। যা তার ক‍্যারিয়ারের অন‍্যতম লস।

স্বদেশ- আশুতোষ গোয়ারিকরের আরো একটি ছবি প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন হৃত্বিক। এই ছবি পরবর্তীতে দেশের মাটিতে সাফল্য না পেলেও বিদেশে ব্যাপক মুনাফা লাভ করে। এই ছবির হাত ধরেই শাহরুখ খান আরো এক পা এগিয়ে যান।

বাহুবলী- হ‍্যা বিশ্বজুড়ে খ‍্যাত এই ছবির জন্য এসএস রাজামৌলির প্রথম পছন্দ ছিল হৃত্বিক। কিন্তু সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন অভিনেতা। আসলে তিনি যোধা আকবরের পর কোনো পিরিয়ড ড্রামা করতে চাননি। পরে নিশ্চয়ই ছবির সাফল্য দেখে তিনি আফসোস করেছেন!

দিল চাহতা হ‍্যায়- আমির খান, সইফ আলি খান, অক্ষয় খান্না অভিনীত এই ছবিটিতে ফারহান আক্তার হৃত্বিককে সমির অথবা সিড যেকোনো একটি চরিত্র বেছে নিতে বলেছিলেন কিন্তু অভিনেতা তাতে রাজি হননি। কিন্তু ছবি মুক্তির পর এই ছবি সমালোচক মহল পর্যন্তও বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছিল। এমনকি সইফ আলি খানের ডুবন্ত কেরিয়ারকেও ভাসিয়ে তুলেছিল ছবিটি।

রং দে বাসন্তী- আমির খানের এই ছবিতে সিদ্ধার্থের চরিত্রের জন্য পরিচালকের পছন্দ ছিল হৃত্বিককে। কিন্তু আমিরের তুলনায় ছোট চরিত্রে অভিনয় করতে রাজি ছিলেন না এই অভিনেতা। কিন্তু তার এই প্রত‍্যাখানের সুযোগ লুফে নিয়েছিলেন কর্ণ সিংহানিয়া। আর সেই চরিত্রও বহুলহারে প্রশংসিত হয়েছিল দর্শকদের কাছে।