বিনোদন

পাঁচ ছেলে-মেয়ের বাবা হয়েও কমেনি ছুঁকছুঁকানি! করিনাকে ছেড়ে অন্য মেয়েদের দিকে নজর সইফের

বলিউডের একাধিক সেলিব্রেটি দম্পতিদের মধ্যে অন্যতম চর্চিত ও লাইমলাইটে থাকা সেলিব্রেটি দম্পতি হলেন সাইফ আলী খান ও কারিনা কাপুর খানের জুটি। মাঝেমধ্যেই বলিউডের চর্চায় উঠে আসে তাদের জীবনের নানা কথা। বলিউডে অসম বয়সী প্রেমের উদাহরণ রয়েছে প্রচুর, আর এই উদাহরণের মধ্যে একটি দৃষ্টান্ত হলো সাইফ-করিনা জুটি। সাইফ নিজের থেকে ১০ বছরের ছোট করিনা সঙ্গে বিবাহবন্ধনে জড়িয়ে ছিলেন। তবে বিয়ের দশ বছর কেটে গেলেও সইফের অন্য নায়িকাদের প্রতি কমেনি আগ্রহ। আর বর্তমানে এই নিয়েই শুরু হয়েছে চর্চা।

সাইফ আলী খান প্রথম জীবনে নিজের থেকে বয়সে বড় অমৃতা সিংয়ের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন। তাদের দুটি সন্তান হয় সারা আলি খান এবং ইব্রাহিম। তবে তাদের এই সম্পর্ক দীর্ঘদিন স্থায়ী হয়নি পরে অভিনেতার জীবনে প্রবেশ করে করিনা কাপুর। করিনা কাপুরের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি এবং তাদের দুটি সন্তান হয় তৈমুর এবং জাহাঙ্গীর। দেখতে দেখতে করিনার সঙ্গেও দশটি বছর পার করে ফেলেছেন সাইফ। কিন্তু এখনো পর্যন্ত তার অন্য নায়িকাদের প্রতি কমিনি আগ্রহ, তার ঝলক উঠে এল সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর এই নিয়েই শুরু হয়েছে জল্পনা।

জল্পনার সূত্রপাত হয়েছে একটি সাক্ষাৎকারকে ঘিরে। সম্প্রতি সইফ করিনা অংশগ্রহণ করেছিলেন জেড্ডায় রেড সি ফ্লিম ফেস্টিভ্যালে। সেখানে একটি সাক্ষাৎকারে সইফ সিনেমায় অভিনেত্রীদের অবদান সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন। সেখানে অভিনেত্রীদের অবদান সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি তার বহু প্রিয় অভিনেত্রীদের নাম নিয়ে তাদের সম্পর্কে বলতে থাকেন। কিন্তু তার প্রিয় অভিনেত্রীদের তালিকায় সকলের নাম থাকলেও ছিল না তার স্ত্রী করিনার নাম। আর এই নিয়েই জল্পনা উঠেছে তুঙ্গে।

সাক্ষাৎকার সইফ বলেছেন, “সিনেমায় মহিলাদের অবদান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মহিলারা ছাড়া সিনেমা অসম্পূর্ণ”। এরপর তিনি তার প্রিয় কয়েকজন বিদেশি অভিনেত্রীর নাম নেন। কিন্তু একবারের জন্যও তিনি করিনার নাম নেননি। নাম না নেওয়ায় শেষে অভিনেত্রী তাকে মনে করিয়ে দেন সেকথা এবং অভিনেতাও তড়িঘড়ি সেটিকে শুধরে নেন। তবে এই ঘটনাটি নজর এড়ায়নি নেটিজেনদের। আর এই নিয়েই চলছে তুমুল চর্চা নেটপাড়ায়।