বিনোদন

হবু শ্বশুরবাড়িতে মা লক্ষ্মীর আরাধনায় ব্যস্ত পারুল, হাতে হাত দিয়ে ছবি তুললেন রুদ্রজিৎ-প্রমিতা

সাত ভাই চম্পা ধারাবাহিকের পারুল রাঘবেন্দ্রকে অচেনা নয় কারুর। নিজেদের অভিনয় ক্ষমতা দিয়ে দর্শকদের বুঁদ করে রাখতেন এই জুটি।

শুক্রবার সকলে মেতেছে লক্ষ্মী আরাধনায়। উমাকে বিদায় জানানোর পরই এবার তার মেয়ে লক্ষীকে আগমন জানাচ্ছে বাঙালি। বিকেল হলেই উলুধ্বনি, ধুনোর গন্ধ বলে দেবে মা লক্ষ্মী পা রেখেছেন ঘরে। তবে পুজো বললেই তো পুজো নয় তার কিছু গোছগাছ থাকে। আর তাই বিয়ের আগেই এবার রুদ্রজিতের বাড়ির লক্ষ্মী পুজোর জোগাড়ে ব্যস্ত তার হবু স্ত্রী প্রমিতা।

সাত ভাই চম্পা ধারাবাহিকের পারুল রাঘবেন্দ্রকে অচেনা নয় কারুর। নিজেদের অভিনয় ক্ষমতা দিয়ে দর্শকদের বুঁদ করে রাখতেন এই জুটি। এই পারুল ও রাঘবেন্দ্র কিন্তু রিল লাইফের মতো রিয়েল লাইফেও জুটি বেঁধেছেন। কিছুদিন পরেই তাদের চার হাত এক হবে। মাঝেমধ্যেই সেলেব জুটি তাদের রোমান্টিক ছবি পোস্ট করে। এরই মাঝে উপস্থিত লক্ষ্মী পুজোর শুভক্ষণ। আর মা লক্ষ্মীর আরাধনায় একসঙ্গে কাটানোর সুযোগ তারা কোনভাবেই মিস করবেন না তারা। রাঘবেন্দ্র ,পারুল অর্থাৎ রুদ্রজিত ভট্টাচার্য এবং প্রমিতা এই বছর মা লক্ষ্মীর আরাধনা একসঙ্গেই করবেন।

হবু শ্বশুরবাড়িতে লক্ষ্মী পুজো করছেন অভিনেত্রী প্রমিতা। পরণে লাল শাড়ি, কপালে লাল টিপ, সোনার গয়না কানে ঝুমকো দুল, এক্কেবারে নববধূ। পাশে সাদা রঙের পাঞ্জাবিতে নতুন জামাই থেকে কম কিছু লাগছেনা রুদ্রজিতকে। সবেমাত্র নতুন ফ্ল্যাটে শিফট করেছেন রুদ্রজিৎ। আর সেই নতুন বাসস্থানেই হবু গৃহলক্ষ্মীর হাত ধরে আরাধনা হবে মা লক্ষীর। সেই আয়োজনেই ব্যস্ত সেলেব জুটি।

সম্প্রতি মহাষ্টমীর দিন রুদ্রজিত নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল একটি ছবি শেয়ার করেছিলেন যেখানে রুদ্রকে দেখা গিয়েছিল লাল পাঞ্জাবিতে এবং প্রমিতা পরেছিলেন লাল জামদানি সঙ্গে মানানসই সোনার গয়না এবং সাজগোজ। বিয়ের আগেই দশমীর দিনই হবু স্বামীর হাতে সিঁদুর রাঙা হন প্রমিতা। তারা শুধু সিঁদুর খেলেছেন তাই নয় প্রি ওয়েডিং সুটও সেরে ফেলেছেন তারা। আগামী বছরই তাদের চার হাত এক হওয়ার কথা।

Tags

Related Articles

Close